প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে শাহীন আফ্রিদির ঘাতক বোলিং, আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এমনটা করা তৃতীয় খেলোয়াড়||‘যদি 400 অতিক্রম করা যেত, ভারত একটি হিন্দু রাষ্ট্র হয়ে উঠত’, বিজেপি নেতা রাজা সিং || জাপানে ছড়িয়ে পড়েছে মাংস খাওয়া ব্যাকটেরিয়া, এটি 48 ঘন্টার মধ্যে মৃত্যু ঘটায়||আমির খানের প্রত্যাবর্তনের জন্য প্রস্তুত হন, ‘সিতারে জমিন পর’ সম্পর্কে এই নতুন আপডেট প্রকাশিত ||হেরে যাওয়াদেরও কর্মীদের পাশে দাঁড়ানো উচিত, বার্তা দিলীপ ঘোষের||দুর্গাপুজো পর্যন্ত বাংলায় কেন্দ্রীয় সেনা রাখার আবেদন শুভেন্দু অধিকারীর ||EURO Cup 2024 : পোল্যান্ড-নেদারল্যান্ডস ম্যাচের আগে ভক্তদের কুড়াল দিয়ে আক্রমণ, অভিযুক্তকে গুলি করে পুলিশ||ইভিএম বিতর্কে নীরবতা ভাঙল নির্বাচন কমিশন, মোবাইল ওটিপির প্রশ্নে এই উত্তর দিল|| 27 মাস পর একটি বিশেষ দিনে বিশেষ সেঞ্চুরি করলেন স্মৃতি মান্ধনা||রাশিয়ার ডিটেনশন সেন্টারের বেশ কয়েকজন কর্মীকে বন্দি করেছে আইএসআইএস

ন্যাটোর সাথে বিরোধের মধ্যে রাশিয়া কেন তালেবানের সাথে সম্পর্ক উন্নত করার চেষ্টা করছে?

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
রাশিয়া

2021 সাল থেকে আফগানিস্তানের ক্ষমতা তালেবানদের হাতে। এরপর বিশ্বের অনেক বড় দেশ তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দিতে অস্বীকার করেছে। আফগানিস্তান গত তিন বছর ধরে আন্তর্জাতিক ফোরামে অস্পৃশ্য রয়ে গেছে। আমেরিকা সহ অনেক পশ্চিমা দেশ তালেবানের উপর বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে এবং আফগানিস্তানের বৈদেশিক রিজার্ভও দখল করেছে। অন্যদিকে, ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধরত রাশিয়াও একই ধরনের পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হচ্ছে। একদিকে, রাশিয়া ইউক্রেনের সাথে যুদ্ধ করছে এবং ন্যাটো দেশগুলির বাহিনী তার বিরুদ্ধে নিযুক্ত রয়েছে। অন্যদিকে পশ্চিমা বিরোধী দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করতে ব্যস্ত রাশিয়া। এখন রাশিয়া তালেবানের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলতে শুরু করেছে।

রাশিয়ার এই উদ্যোগকে সমর্থন করে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেছেন, তালেবানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ানো দেশের জন্য উপকারী।

তালেবানের সঙ্গে রাশিয়ার ক্রমবর্ধমান ঘনিষ্ঠতা নিয়ে অনেক সাংবাদিক আপত্তি জানিয়েছিলেন। যার জবাবে মারিয়া বলেন, মাদক চোরাচালান ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে আফগানিস্তানের তালেবান সরকারের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করা প্রয়োজন।

“সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে তালেবানের সমর্থন প্রয়োজন”
রাশিয়ার TASS নিউজ এজেন্সি অনুসারে, মারিয়া জাখারোভা তার বিবৃতিতে বলেছেন, “কিছু ব্লগার এবং সাংবাদিক তালেবানদের সাথে আলোচনায় নার্ভাসভাবে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন। “যারা এই বিষয়গুলি নিয়ে নেতিবাচকভাবে লিখছেন তারা বোঝেন না যে মাদক পাচার, সন্ত্রাসবাদ এবং সংগঠিত অপরাধের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের মতো সমস্যা সমাধানের জন্য তালেবানের সাথে যোগাযোগ প্রয়োজন এবং এটি আমাদের স্বার্থে।”

তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্তব্যের প্রশংসা করে বলেছেন, ইসলামিক আমিরাত বিশ্বের সব দেশের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করতে চায়। আফগানিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার জন্য বিশ্বের অন্যান্য দেশের কাছেও আবেদন জানিয়েছেন মুজাহিদ। মুজাহিদের মতে, আফগানিস্তানের প্রয়োজন দেশগুলোর সঙ্গে সহযোগিতা ও ইতিবাচক যোগাযোগ।

তালেবান থেকে পশ্চিমা দেশটির দূরত্ব ও রাশিয়ার সঙ্গে বিরোধ
আফগানিস্তানে তালেবান শাসনের তিন বছর পরও পশ্চিমা দেশগুলো তালেবানকে কাবুলের সরকার হিসেবে স্বীকৃতি দিচ্ছে না। ইউক্রেন যুদ্ধের পর থেকে ন্যাটো দেশগুলো রাশিয়ার বিরুদ্ধে একের পর এক পদক্ষেপ নিচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে রাশিয়া ও তালেবানের একত্র হওয়া পশ্চিমা দেশগুলোর জন্য বড় ধাক্কা হতে পারে। রাশিয়া ইতোমধ্যে চীন, ইরান, উত্তর কোরিয়ার মতো মার্কিন লাইন অনুসরণকারী দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করেছে।

দেশগুলো তালেবানের কাছাকাছি আসছে
তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর প্রায় তিন বছর কেটে গেছে। তালেবানের সাথে সম্পর্ক স্থাপনকারী প্রথম দেশগুলোর মধ্যে একটি ছিল চীন। অনেক বড় চীনা কোম্পানি বর্তমানে তালেবান সরকারের সাথে কাজ করছে। সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান তালেবান নেতা সিরাজুদ্দিন হাক্কানির সঙ্গে দেখা করেছেন। একই সঙ্গে মধ্য এশিয়ার অনেক দেশ তালেবান সরকারের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করছে।

অন্যদিকে ইরানের সঙ্গে তালেবানের ঘনিষ্ঠতাও বাড়ছে। তালেবানকে একটি কট্টরপন্থী সুন্নি গোষ্ঠী হিসাবে বিবেচনা করা হয় এবং শিয়া মুসলমানদের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগও রয়েছে। চলতি বছরের মার্চে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা জিতেন্দ্র পাল সিং আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির মুত্তাকির সঙ্গে দেখা করেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর