প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||পাকিস্তানে ভারী বর্ষণে ৮৭ জনের মৃত্যু, সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর||রাহুল গান্ধীর দিকে কটাক্ষ করলেন কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন, মনে করিয়ে দিলেন তাঁকে তাঁর ঠাকুরমার কথা||ইরান যে দেশটিকে হুমকি মনে করে, ইসরাইল তার সাহায্য নিয়েছিল হামলার জন্য|| শীঘ্রই একটি যৌথ ইশতেহার জারি করবে INDIA জোট, এই 7টি বড় প্রতিশ্রুতি দেওয়া হবে||জেনে নিন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সম্পত্তি কত!|| নাগাল্যান্ডের 6টি জেলায় একটিও ভোটার ভোট দেয়নি, পৃথক রাজ্যের দাবি উঠেছে; জেনে নিন কী বললেন মুখ্যমন্ত্রী||‘মানুষ রেকর্ড সংখ্যায় এনডিএ-কে ভোট দিচ্ছে’, প্রথম দফার ভোটের পরে বললেন প্রধানমন্ত্রী মোদি||বাচ্চাদের পর্নোগ্রাফি দেখা অপরাধ নাকি? পড়ুন সুপ্রিম কোর্টের বড় সিদ্ধান্ত||কেএল রাহুলের শক্তিতে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে লখনউয়ের বড় জয়, 8 উইকেটে পরাজিত সিএসকে||গুজরাটে পাওয়া গেছে সবচেয়ে বড় সাপের ‘বাসুকি’র অবশেষ

মেদিনীপুরে কে হচ্ছেন বিজেপি প্রার্থী তা নিয়ে জল্পনার মধ্যে দেওয়ালে নাম!

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
মেদিনীপুর

কে হচ্ছেন মেদিনীপুর লোকসভা থেকে বিজেপি প্রার্থী তা নিয়ে চলছে নানা জল্পনা। এদিকে পদ্মা প্রার্থী হিসেবে বিদায়ী সাংসদ দিলীপ ঘোষের নামে দেয়াল লিখনের ছবি পোস্ট করা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। দিলীপের কথা শুনে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে এই কাজ করল, এটা ঠিক নয়।

শনিবার সকালে কলকাতার ইকো পার্কে মর্নিং ওয়াক করতে যান দিলীপ। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা যায় মেদিনীপুরের বিদায়ী সাংসদ রং নিয়ে খেলছেন। এর কিছুক্ষণ পরেই ‘দিলিপ ঘোষের অফিস’ নামে একটি ফেসবুক পেজে গ্রাফিতির ছবি পোস্ট করা হয়। প্রতিটি ছবিতে মেদিনীপুর কেন্দ্র থেকে পদ্ম পুরস্কারের প্রার্থী হিসেবে দিলীপ ঘোষের নাম রয়েছে। মেদিনীপুর 4 নং মন্ডল এক দেওয়ালে লেখা। এটি শালবনি এলাকার বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে বাকি দেয়ালগুলো কোন এলাকার অন্তর্গত তা স্পষ্ট নয়। ছবিতে দেখা দেয়ালগুলো নতুন নাকি পুরনো তাও প্রশ্ন উঠেছে।

তবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, মেদিনীপুরের দিলীপ সমর্থকরা শুধু দলের শীর্ষ নেতৃত্বের ওপর চাপ দিতেই দেওয়াল লিখন করেছেন। যদিও বিজেপির মেদিনীপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি সুদাম পণ্ডিত বলেছেন, “আমি জানি না দেওয়ালটি কে লিখেছেন এবং কোথায় লিখেছেন৷ আমাকে খুঁজে বের করতে হবে।” দিলীপ নিজেই বলেছেন, “অনেক দলের কর্মী নিশ্চয়ই মিডিয়ার কাছে বিভ্রান্ত হচ্ছেন। এর জন্য দলের কেউ একজন খুব উত্তেজিত হয়ে দেয়ালে এরকম লিখেছিলেন। কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। যতক্ষণ না পার্টি প্রার্থী যতক্ষণ না সরকার কারও নাম ঘোষণা না করবে, ততক্ষণ কারও নাম এভাবে লেখা চলবে না।

মেদিনীপুরে বিজেপি প্রার্থী হিসেবে ভারতী ঘোষের নামও চলছে। ঘটনাচক্রে, একই দিনে খড়্গপুর থেকে একটি ভিডিও (সত্যতা আনন্দবাজার দ্বারা যাচাই করা হয়নি) ভাইরাল হয়েছিল। সেই সঙ্গে এগিয়ে এসেছেন বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন পুলিশকর্মী ভারতী, খড়্গপুর দক্ষিণ বিভাগের সহ-সভাপতি বেলারানি অধিকারী। বেল্লারানি, যিনি বিজেপির টিকিটে 2015 সালের উপনির্বাচনে জয়ী হন, তিনি তৃণমূলে যোগ দেন। পুলিশের চাপে দল ছাড়ছেন বলে দাবি করেন তিনি। ভারতী তখন পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার ছিলেন। ভারতী বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরে, বেলারানি বিজেপিতে ফিরে আসেন।

সেই ভিডিওতে বেলারানির বক্তব্য ছিল যে ভারতী ঘোষকে পুলিশ অত্যাচার করেছিল এবং তৃণমূলে যোগ দিতে বাধ্য করেছিল। তার মতো অনেকেই ভারতীকে প্রার্থী হিসেবে মেনে নিতে পারছেন না। এ বিষয়ে জানতে চাইলেও বেলারানি তার অবস্থান পরিবর্তন করেননি। বিজেপির মেদিনীপুর সাংগঠনিক জেলা মুখপাত্র অরূপ দাসের মতে, “যারা যোগ্য তাকেই মেদিনীপুর কেন্দ্রে মনোনয়ন দেওয়া হবে। কেউ এ বিষয়ে আগাম মন্তব্য করবেন না।”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর