প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||Horoscope Tomorrow :  বৃষ, সিংহ, মকর, মীন রাশির মানুষ প্রতারিত হতে পারেন, জেনে নিন আগামীকালের রাশিফল||আইপিএল 2024 এর মধ্যে স্টার স্পোর্টসের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ করেছেন রোহিত শর্মা ||অনন্যা পান্ডেকে নিয়ে ‘গ্লো অফ ব্রেকআপ’? অভিনেত্রীর সাহসী ছবি নিয়ে ঝড়||তারক মেহতার সোধির প্রত্যাবর্তন নিয়ে প্রযোজক অসিত মোদির প্রতিক্রিয়া ||গরুড় পুরাণ: মৃত্যুর পরে কি আত্মাদের চলতে হয়? জেনে নিন এর রহস্য||মুসলিম ভোট পেতে সাধুদের অপমান করছেন মুখ্যমন্ত্রী, মমতাকে আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী||সীতা কুন্ড: মা সীতার অগ্নিপরীক্ষা হয়েছিল এখানে, এই কুন্ডের জল সবসময় থাকে গরম ||তাহলে কি খুঁজে পাওয়া গেছে আলাদিনের আসল প্রদীপ? ‘জাদু’ দেখে স্তম্ভিত হয়ে যাবেন||নিজের ভবিষ্যৎ ঠিক করে ফেলেছেন এমএস ধোনি, বড় বিবৃতি দিলেন সিএসকে কোচ||ভুলেশ্বর মহাদেব: এই মন্দিরে পিন্ডির নিচে দেওয়া হয় প্রসাদ , সন্ধ্যা আরতির মাধ্যমে পাত্র খালি হয়ে যায়

বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধনী বিল স্বাক্ষর না করায় রাজ্যপালের বক্তব্য শুনতে নোটিশ জারি করল সুপ্রিম কোর্ট

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
সুপ্রিম কোর্ট

সুপ্রিম কোর্ট বিধানসভায় পাস হওয়ার পরে পশ্চিমবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধনী বিল স্বাক্ষর না করে নিষ্ক্রিয় বসে থাকার বিষয়ে রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসের অফিস থেকে বিবৃতি চেয়েছে।পশ্চিমবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধনী বিল 2022 সালের জুন মাসে বিধানসভায় পাস হয়েছিল। বিলে রাজ্যপালের পরিবর্তে মুখ্যমন্ত্রীকে রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হিসেবে নিয়োগ করার বিধান রয়েছে। এরপর প্রায় দুই বছর কেটে গেলেও রাজ্যপাল এই বিল অনুমোদন করেননি। প্রধান বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের একটি বেঞ্চ আজ পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারিকে নোটিশ জারি করেছে এবং চার সপ্তাহের মধ্যে এই বিষয়ে তার বক্তব্য চেয়েছে। শীর্ষ আদালত রাজ্য উচ্চ শিক্ষা বিভাগ এবং কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে বিবৃতিও চেয়েছে।

ইতিমধ্যেই উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে রাজ্যে দ্বন্দ্ব চলছে। বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টেও গড়িয়েছে। রাজ্য সরকার বিধানসভায় একটি বিলও পাস করেছে, যেখানে উপাচার্য নিয়োগের জন্য পাঁচ সদস্যের অনুসন্ধান কমিটি গঠনের বিধান করা হয়েছে। রাজ্যপাল সেই বিলে স্বাক্ষরও করেননি। এদিকে, বিলে স্বাক্ষর না করার বিষয়ে রাজ্যপালের বিবৃতি চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে নভান বনাম রাজভবন বিতর্ক নতুন মোড় নিয়েছে।

শুধু পশ্চিমবঙ্গই নয়, সাম্প্রতিক সময়ে অনেক বিরোধী শাসিত রাজ্যে বিধানসভায় পাস করা বিলে স্বাক্ষর না করা নিয়ে রাজ্যপালদের সঙ্গে সরকারের বিরোধ হয়েছে। কেরালা, পাঞ্জাব, তেলেঙ্গানা, তামিলনাড়ুর মতো বিরোধীরা সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে। গত বছরের এপ্রিলে, সুপ্রিম কোর্ট রাজ্যপালদের একটি বার্তা দিয়েছিল যে সংবিধানের 200 অনুচ্ছেদ অনুসারে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিলটি অনুমোদন করা রাজ্যপালের দায়িত্ব।

এর পর নভেম্বর মাসেও তামিলনাড়ু ও পাঞ্জাবের রাজ্যপালদের ক্ষেত্রে বিলের ওপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছিল সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ। সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, রাজ্যপাল হলেন রাজ্যের প্রতীকী প্রধান। তিনি বিধানসভার আইন প্রণয়নে বাধা দিতে পারেন না। আজ, সুপ্রিম কোর্ট পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসের বক্তব্য চাওয়ার পরে, মামলার আইনজীবী অরুণাংশু চক্রবর্তী বলেছেন, “এই মামলাটি রাজ্যপালের ক্ষমতার বৃহত্তর ইস্যুতে যায় কারণ যখন বিলটি সম্মতির জন্য রাজ্যপালের কাছে উপস্থাপন করা হয়। যদি পাঠানো হয়, তাদের তিনটি বিকল্প আছে। প্রথমত, তিনি বিলটি অনুমোদন করতে পারেন। দুই, বিলটি পুনর্বিবেচনার জন্য রাজ্য সরকারের কাছে ফেরত পাঠানো যেতে পারে। তিন, বিলটি রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠাতে পারেন। এমন পরিস্থিতিতে রাজ্যপাল কিছু না করেই বিলে সই করে বসে আছেন।

তৃণমূল ছাত্র পরিষদ (TMCP) নেতা সায়ান মুখোপাধ্যায় কলকাতা হাইকোর্টে একটি পিআইএল দায়ের করেছেন যাতে সিভি আনন্দ বোস বিল বিধানসভায় পাস হতে না পারে। সেই মামলায় গত সেপ্টেম্বরে বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায় এবং বিচারপতি হিরন্ময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ বিলটির অবস্থা জানতে রাজ্যপালের কার্যালয় থেকে হলফনামা চেয়েছিল।

কিন্তু অক্টোবরে প্রধান বিচারপতি টিএস শিবগানমের নেতৃত্বে একটি ডিভিশন বেঞ্চ বলেছিল যে আগের ডিভিশন বেঞ্চের আদেশ প্রযোজ্য হবে না। রাজ্যপালকে হলফনামাও দিতে হয় না। কলকাতা হাইকোর্টের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন সায়ন। মামলার আর শুনানি না হওয়ায় তার আইনজীবী সায়ন সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন। তার আইনজীবী অরুণাংশু চক্রবর্তী জানান, অক্টোবরের পর হাইকোর্টে এ মামলার শুনানি হয়নি। সুপ্রিম কোর্টে শুনানি শেষে তিনি বলেন, আমরা শুধু প্রশ্ন তুলেছিলাম যে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ অন্য বেঞ্চের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে বাধা দিতে পারে কি না গভর্নর সাহেব বিষয়টির অবসান ঘটিয়েছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর