প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||মেঘ বিস্ফোরণ ইটানগরে ধ্বংসযজ্ঞ, সর্বত্র দৃশ্যমান ভয়াবহ দৃশ্য; অনেক এলাকার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন||ছত্তিশগড়ের সুকমায় আইইডি বিস্ফোরণে শহীদ ২ সেনা||Daily Horoscope: মিথুন সহ এই ৫টি রাশির জাতক জাতিকারা কাঙ্খিত অগ্রগতি পাবেন, কোন রাশির জাতকরা মন খারাপ করবেন?||NEET Scam : NEET-UG পেপার ফাঁস মামলায় প্রথম FIR নথিভুক্ত করেছে CBI||মক্কায় হজযাত্রীর মৃত্যুতে হতবাক মিশর সরকার, এত কোম্পানির বিরুদ্ধে নিল ব্যবস্থা ||24 ঘন্টার মধ্যে ইয়েমেনের হুথিদের দ্বারা দ্বিতীয় ড্রোন হামলা, এখন লোহিত সাগরে জাহাজ লক্ষ্যবস্তু||বড় ধাক্কা পেলেন বজরং পুনিয়া, আবারও সাসপেন্ড করল নাডা||আবার আকাশ আনন্দকে তার উত্তরসূরি হিসেবে বেছে নিয়েছেন মায়াবতী||ইন্দোরে বিজেপি নেতাকে গুলি করে হত্যা||আহত ফিলিস্তিনিকে জিপের সামনে বেঁধে রেখেছে ইসরায়েলি সেনা

এই প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমারে পরিস্থিতি রাফার চেয়ে কম খারাপ নয়, উদ্বেগ প্রকাশ করেননি জাতিসংঘ

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
মিয়ানমার

জাতিসংঘের মুখপাত্র মিয়ানমারে বেসামরিক মানুষ হত্যার তীব্র নিন্দা করেছেন। রাখাইন রাজ্য ও সাগাইং এলাকায় মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে মানুষ হত্যার নিন্দা জানান তিনি। সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে মিয়ানমারের পরিস্থিতি বেশ উদ্বেগজনক। জাতিসংঘের মহাসচিব শুধু এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেননি, পরিকল্পিতভাবে এর সমাধান খোঁজারও আবেদন জানিয়েছেন।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনী এবং আরাকান আর্মির মধ্যে সহিংসতা হয়েছে যাতে হাজার হাজার মানুষ গৃহহীন হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে এই সহিংসতা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বেশিরভাগ হামলা হয়েছে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর। রোহিঙ্গা মুসলিমদের বহু প্রজন্ম দীর্ঘদিন ধরে রাখাইন রাজ্যে বসবাস করে আসছে। তা সত্ত্বেও তিনি নাগরিকত্ব পাননি। ২০১৭ সালের পর লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

বাস্তুচ্যুত হয়েছে প্রায় ২ লাখ ২৬ হাজার মানুষ
পশ্চিম মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে জাতিগত ভিত্তিতে জনগণকে টার্গেট করা এবং পরবর্তীতে রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর নিপীড়ন গভীরভাবে উদ্বেগজনক। জাতিসংঘ সব সম্প্রদায়ের মানুষের উন্নতির জন্য পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেছে। সাম্প্রতিক হামলার সময় এই সম্প্রদায়ের কিছু লোকের শুধু শিরশ্ছেদ করা হয়নি, তাদের ঘরবাড়িও পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত ২ লাখ ২৬ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিমকে বাস্তুচ্যুত হতে হয়েছে। এই সমস্ত মানুষ এখন তাদের হদিস খুঁজছে জাতিসংঘ ইতিমধ্যে একই ধরনের ঘটনা রিপোর্ট করেছে যেখানে শুধু মায়ানমারে মানুষ নিখোঁজ হয়নি, গ্রামের নিরস্ত্র মানুষদেরও গুলি করা হয়েছে। মিয়ানমারেও রয়েছে খাদ্য সংকট। আগামী কয়েক মাসে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর