প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||Pankaj Udhas : চলে গেলেন গজল সম্রাট পঙ্কজ উধাস, 72 বছর বয়সে পৃথিবীকে বিদায় জানালেন গজল সম্রাট||Lionel Messi : ৯২তম মিনিটে লিওনেল মেসির গোলে হার এড়ালো মায়ামি||Geeta Koda : বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন কংগ্রেস সাংসদ গীতা কোডা, বলেছেন- তাদের নীতি বা চিন্তা নেই||Nafe Singh Rathee : হরিয়ানায় আইএনএলডি নেতা নাফে সিং রাঠির হত্যার তদন্ত করবে সিবিআই, পাওয়া গেছে খুনিদের সিসিটিভি ফুটেজ||Maratha movement :মহারাষ্ট্রের  জালনায় বাস পুড়িয়ে দিয়েছে মারাঠা আন্দোলনকারীরা, তিনটি জেলায় ইন্টারনেট বন্ধ||Dhruv Jurel :পিচের মাঝখানে এমন কিছু করেন ধ্রুব জুরেল, তখনই বৃষ্টি হয়, কুলদীপ যাদবের বড় প্রকাশ||Job Scam : নিয়োগের দাবিতে রাস্তায় বঞ্চিত চাকরি প্রার্থীরা||Himanta Biswa Sarma : ‘যতদিন আমি বেঁচে আছি, আমি আসামে বাল্যবিবাহ হতে দেব না’, বিধানসভায় বললেন মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা||Sheikh Shajahan : শেখ শাহজাহানকে গ্রেপ্তারে বাধা নেই, সন্দেশখালি মামলায় নির্দেশ হাইকোর্টের||Sandeshkhali : তৃণমূলের ‘জনগর্জন’-এর দিনে সন্দেশখালিতে সভা করবে সিপিএম!

হেমন্ত সোরেনের আবেদনের ওপর শুনানি এখন ২৭ ফেব্রুয়ারি, মান্ডও শেষ হয় ১২ ফেব্রুয়ারি

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
হেমন্ত সোরেন

ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনের আবেদনের ওপর আজ রাঁচি হাইকোর্টে শুনানি হয়। আদালত ইডিকে একযোগে তাদের মতামত জানাতে বলেছে। এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে 27 ফেব্রুয়ারি। হেমন্ত সোরেনের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র অ্যাডভোকেট কপিল সিবাল, ঝাড়খণ্ডের অ্যাডভোকেট জেনারেল রাজীব রঞ্জন এবং অ্যাডভোকেট পীযূষ চিত্রেশ তাদের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন। ইডির পক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল এসভি রাজু এবং অ্যাডভোকেট এ কে দাস।

বিচারপতি চন্দ্রশেখরের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হয়। শুনানির পর, আদালত হেমন্ত সোরেনের দায়ের করা ফৌজদারি রিট পিটিশন এবং সংশোধনী পিটিশনের উপর তার জবাব দাখিলের জন্য এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটকে দুই সপ্তাহ সময় দিয়েছে।

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ইডি গ্রেপ্তারের বিরুদ্ধে ফৌজদারি এবং হস্তক্ষেপের আবেদন করেছেন। হেমন্ত সোরেনের ইডি রিমান্ডও আজই শেষ হচ্ছে।এর আগে 5 ফেব্রুয়ারি, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর আবেদনের শুনানি হাইকোর্টে হয়েছিল, যেখানে আদালত ইডিকে তার জবাব দাখিল করতে বলেছিল।

এ জন্য 9 ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সময় পেয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। হেমন্ত সোরেনের পক্ষে মামলাটি উপস্থাপন করবেন সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র অ্যাডভোকেট কপিল সিবাল। অন্যদিকে, ইডি-র পক্ষে হাজির হবেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট অমিত কুমার দাস। বিচারপতি এস চন্দ্রশেখর ও বিচারপতি অরুণ কুমার রাইয়ের ডিভিশন বেঞ্চে এই আবেদনের শুনানি হবে।

হাইকোর্টে যেতে বলেছিল সুপ্রিম কোর্ট
হেমন্ত সোরেনের গ্রেফতারির ওই দিনই সুপ্রিম কোর্টে একটি পিটিশন দাখিল করা হয়। কপিল সিবাল এবং অভিষেক মনু সিন্দভি প্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূদের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চের সামনে মামলার জরুরি শুনানির জন্য আবেদন করেছিলেন।

2 ফেব্রুয়ারি মামলার শুনানির কথা বলেছেন সিজেআই। এদিন বিচারপতি খান্না, বিচারপতি এম এম সুন্দরেশ ও বিচারপতি বেলা ত্রিবেদীর বেঞ্চে মামলার শুনানি হয়। সুপ্রিম কোর্টে যখন পিটিশন দেওয়া হয়েছিল, তখন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেছিলেন যে হেমন্ত সোরেনের পক্ষে ঝাড়খণ্ড হাইকোর্টেও একই রকম একটি পিটিশন দায়ের করা হয়েছে।এ বিষয়ে সিবাল বলেন, হাইকোর্ট থেকে পিটিশন প্রত্যাহার করা হচ্ছে। তিনি বলেছিলেন যে আদালতকে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের 19 ধারা পর্যালোচনা করতে হবে।এই বিষয়ে, সুপ্রিম কোর্ট হেমন্ত সোরেনের আবেদন শুনতে অস্বীকার করে এবং তাকে হাইকোর্টে যেতে বলে। এর আগে 1 ফেব্রুয়ারি ঝাড়খণ্ড হাইকোর্টে শুনানি হয়। যেখানে হেমন্ত সোরেন পিটিশন প্রত্যাহারের কথা বলেছেন। যা হাইকোর্ট খারিজ করে দেয়। পরবর্তী শুনানির দিন 5 ফেব্রুয়ারি।

5 ফেব্রুয়ারি ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি এস চন্দ্রশেখর ও বিচারপতি অরুণ কুমার রাইয়ের ডিভিশন বেঞ্চ শুনানি করেন। এদিকে, অ্যাডভোকেট অমিত কুমার দাস, ইডি-র পক্ষে উপস্থিত হয়ে বলেছেন যে আবেদনকারীর হস্তক্ষেপের আবেদনের মাধ্যমে নতুন তথ্য বেরিয়ে আসার পরে, তাকে তার জবাব দাখিলের জন্য সময় দেওয়া উচিত। যা ডিভিশন বেঞ্চ গ্রহণ করে 9 ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সময় দেয়। শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে 12  ফেব্রুয়ারি।

কী বলেছেন হেমন্ত সরেন পিটিশনে
হেমন্ত সোরেনের পক্ষে হাইকোর্টে দায়ের করা পিটিশনে বলা হয়েছিল যে ইডি আধিকারিকরা এমন ক্ষমতা ব্যবহার করছেন যা তাদের PMLA-2002-এ দেওয়া হয়নি। তিনি বলেছেন, সাধারণ নির্বাচন ঘনিয়ে এসেছে বলেই তাকে টার্গেট করা হচ্ছে।

লোকপাল আদালতে বাবার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন বিজেপি সাংসদ নিশিকান্ত দুবে। এই ঘটনায় সিবিআই ভুল তদন্ত করেছে। সিবিআই তদন্ত করে লোকপাল আদালতে তিনটি রিপোর্ট পেশ করে। এতে সেসব সম্পত্তিকে আমাদের পারিবারিক সম্পত্তি বলে বর্ণনা করা হয়েছে, যেগুলো আমাদের নয়।

দাখিল করা পিটিশনে বলা হয়েছে, বেআইনি খনির বিষয়ে ইডি প্রথমে হেমন্ত সোরেনের কাছে সমন পাঠায়। যার ভিত্তিতে তিনি তার বক্তব্য রেকর্ড করেছেন। এরপর সদর থানায় নথিভুক্ত 272/23  নম্বর এফআইআরে তাকে সমন পাঠানো শুরু হয়। যে সম্পত্তির জন্য তাকে ইডি জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছিল তা মোটেও তার সম্পত্তি নয়।

হেমন্ত সোরেন ইডি রিমান্ডে

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন 12 ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ইডি রিমান্ডে রয়েছেন। আজ তার রিমান্ড শেষ হচ্ছে। তাকে আদালতে পেশ করবে ইডি। এখনও পর্যন্ত দুবার তাকে 5-5  দিনের রিমান্ড দিয়েছে ইডি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর