প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||ইউক্রেনে শান্তির জন্য আয়োজিত সম্মেলনে অংশ নেবেন ৫০টির বেশি দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা, আমন্ত্রণ পায়নি রাশিয়া||দক্ষিণ চীন সাগরে প্রবেশকারী বিদেশিদের গ্রেপ্তার করবে চীন||দল ছেড়ে যাওয়া নেতাদের ফিরিয়ে নেবেন না… লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলের পর শারদ পাওয়ার এবং উদ্ধব ঠাকরে||অহংকার বিজেপিকে ধ্বংস করেছে… লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে কটাক্ষ অভিষেক ব্যানার্জির||T20 WC 2024: তারকা খেলোয়াড়ের বড় ঘোষণা, দেশে ফেরার আগে বললেন- এটাই আমার শেষ বিশ্বকাপ||জওয়ানের মুক্তির ৭ মাস পর শাহরুখ খানকে নিয়ে এই বক্তব্য দিলেন বিজয় সেতুপতি ||Horoscope Tomorrow: তুলা এবং কুম্ভ রাশির জাতকদের সাবধান হওয়া উচিত, এই ব্যক্তিদের ভাগ্য রবিবার উজ্জ্বল হতে পারে||নির্জলা একাদশী উপায়ঃ নির্জলা একাদশীর দিন এই ব্যবস্থাগুলি করুন, অর্থের অভাব হবে না কখনও||জগন্নাথ রথযাত্রা 2024: ভগবান জগন্নাথ বোন সুভদ্রার সাথে যাত্রায় যাবেন, বিশেষ পোশাক পরবেন||আম্বালা স্টেশনে পাওয়া চিঠি ‘বোমা’; বহু মন্দির উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি

Pakistan : পাকিস্তান থেকে আফগান নাগরিকদের প্রস্থানের সময়সীমা শেষ, বাড়বে উত্তেজনা

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
পাকিস্তান

পাকিস্তানে বসবাসরত আফগান নাগরিকদের পাকিস্তান ছাড়ার সময়সীমা 31 অক্টোবর শেষ হয়েছে। গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, এ পর্যন্ত 63 হাজার আফগান নাগরিক তাদের দেশে ফিরে গেছেন। পাকিস্তান সরকারের মতে, 17 লাখ আফগান পাকিস্তানে বাস করে এবং তাদের অধিকাংশই অবৈধভাবে বসবাস করছে।

আফগানিস্তানের তালেবান সরকার ও মানবাধিকার সংগঠনগুলো পাকিস্তানের এই পদক্ষেপের বিরোধিতা করেছে। তালেবান গত মাসে বলেছিল যে পাকিস্তান একতরফা পদক্ষেপ নিলে তা দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বাড়াবে।

সেপ্টেম্বরে, পাকিস্তানের তত্ত্বাবধায়ক সরকার দেশটিতে অবৈধভাবে বসবাসকারী আফগান নাগরিকদের দেশ ছেড়ে যাওয়ার জন্য 31 অক্টোবর পর্যন্ত সময় বেঁধেছিল। বাকিদের এখন গ্রেফতার করে জোর করে আফগানিস্তানে পাঠানো হবে।

তিনগুণ বেশি মানুষ ফিরে আসছে
গত 26 অক্টোবর বার্তা সংস্থা ‘রয়টার্স’-এর সঙ্গে আলাপকালে আফগান মন্ত্রী আবদুল মুতালেব হাক্কানি বলেছিলেন- পাকিস্তানে বসবাসকারী আফগান নাগরিকরা দেশে ফিরছেন, কিন্তু এখন এই সংখ্যা তিনগুণ হয়েছে।

করাচির সোহরাব গোঠ এলাকায় সবচেয়ে বেশি আফগান বসতি রয়েছে। আজিজুল্লাহ নামের একজন অপারেটর বলেন- এত বড় পরিসরে মাইগ্রেশন হচ্ছে যে আমাদের বাসের অভাব।

কেন এই পদক্ষেপ নিল পাকিস্তান?

সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানি সংবাদপত্র ‘ডন নিউজ’ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জানায়- এ বছর দেশটিতে আত্মঘাতী হামলার সংখ্যা দ্রুত বেড়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তদন্ত করে দেখা গেছে আফগান নাগরিকরা জড়িত বা জড়িত বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

আশ্চর্যের বিষয় হলো পাকিস্তান এমন একটিও আত্মঘাতী হামলার কোনো প্রমাণ দেয়নি যেখানে কোনো আফগান নাগরিক জড়িত ছিল। আফগানিস্তানের তালেবান সরকারও একই ইস্যু তুলেছিল।

তালেবান সরকার পাকিস্তানের সিদ্ধান্তকে স্বেচ্ছাচারী ও একতরফা আখ্যা দিয়ে বলেছিল- পাকিস্তান তার ব্যর্থতার জন্য আমাদের দায়ী করছে। তোরখাম ও চমন সীমান্তে ইতিমধ্যেই উত্তেজনা বিরাজ করছে পরিস্থিতি। এখন তা কতটা যাবে বলা যাচ্ছে না। এর জন্য দায়ী থাকবে পাকিস্তান।

তত্ত্বাবধায়ক সরকার, যারা পাকিস্তানের অবনতিশীল অর্থনীতিকে ট্র্যাকে ফিরিয়ে আনতে ব্যর্থ হয়েছে, আফগান নাগরিকদের ডলার পাচারের অভিযোগ এনেছে। এ কারণে পাকিস্তানে মূল্যস্ফীতি বাড়ছে। তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক চোরাচালানের অভিযোগও রয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর