প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||জামিন পাননি AAP নেতা সঞ্জয় সিং , আগামী ৬ ডিসেম্বর শুনানি||শীতকালীন অধিবেশন থেকে বরখাস্ত বিরোধী দলের নেতা শুভেন্দু অধিকারী !||আমেরিকান সামরিক ঘাঁটিতে কিম জংয়ের নজর||মুম্বই: অগ্নিবীরের প্রশিক্ষণ নেওয়া আত্মহত্যা করেছে কিশোরী ||IPL 2024: মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আনফলো করেছেন জসপ্রীত বুমরাহ||মণিপুর সহিংসতা: 170 মৃতদেহ দাহের জন্য অপেক্ষা করছে, উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সুপ্রিম কোর্ট||অটো চালকদের মধ্যে পৌঁছেছেন রাহুল গান্ধী, ভিডিও দেখুন||টানেল যুদ্ধের খনন কাজ শেষ করে পূজায় বসেছেন অস্ট্রেলিয়ার আর্নল্ড ডিক্স||উত্তরকাশী টানেল থেকে শ্রমিকদের উদ্ধার কাজ শুরু,টানেলের ভেতরে পাঠানো হয়েছে অ্যাম্বুলেন্স ||উত্তরকাশী টানেল: খনন কাজ শেষ, এখন 41 জন শ্রমিক কিছু সময়ের মধ্যে সুড়ঙ্গ থেকে বেরিয়ে আসবে

 আদালত-বাহিনীকে টার্গেট করেছে নেতানিয়াহুর ছেলে ইয়ার নেতানিয়াহু

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
ইয়ার নেতানিয়াহু

ইসরায়েল ও হামাসের মধ্যে যুদ্ধ চলছে। এদিকে, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর ছেলে ইয়ার নেতানিয়াহু হাইকোর্টের একটি সিদ্ধান্ত এবং 7 অক্টোবরের হামলার জন্য ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনীর (আইডিএফ) ব্যর্থতাকে দায়ী করেছেন।

‘জেরুজালেম পোস্ট’ অনুসারে, আইডিএফ রিজার্ভ ফোর্স ইয়ারের পদক্ষেপের প্রতিক্রিয়া জানায়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে- আপনি এমন সময়ে এই বক্তব্য দিয়েছেন যখন আমরা আমাদের 8 জন শহীদের মৃত্যুতে শোকাহত। চুপ থাকলেই ভালো হবে।

ইয়ের বক্তব্যের জেরে নতুন বিতর্ক

‘জেরুজালেম পোস্ট’ অনুসারে – ইয়ার নেতানিয়াহু তার টেলিগ্রাম চ্যানেলে একটি পোস্টে আইডিএফ, হাইকোর্ট এবং মিডিয়াকে টার্গেট করেছেন। প্রথমে হাইকোর্টকে টার্গেট করেন তিনি। বলেছেন- গাজা সীমান্তে আইডিএফ মোতায়েনের নিয়ম পরিবর্তন করেছে হাইকোর্ট। এ কারণে হামাস সন্ত্রাসীরা ইসরায়েলের সীমান্তে প্রবেশ করতে পারে।

এর পরে, তিনি 7 অক্টোবর হামাসের হামলার কারণ হিসাবে আইডিএফের ব্যর্থতাকে উল্লেখ করেন। ইয়ারের মতে, আইডিএফ নিজেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে গাজা উপত্যকায় জ্বালানি সরবরাহ বন্ধ করা উচিত নয়।

আইডিএফ রিজার্ভস্ট অর্গানাইজেশন ইয়েরের বক্তৃতার জবাব দিয়েছে। এক বিবৃতিতে সংগঠনটি বলেছে- সবার আগে ঘটনাটি দেখতে হবে। আপনার ইগো কথা বলছে। ভুলের জন্য তোমার বাবা দায়ী, তার অনুশোচনা করা উচিত। দেশের জন্য যারা শহীদ হচ্ছেন আমরা তাদের পাশে আছি। তুমি এখান থেকে পালালে। এমন সময়ে যখন আমরা আমাদের আট সৈন্যের শাহাদাতে ব্যথিত, আপনি চুপ থাকলেই ভালো হবে।

ফিলিস্তিন ইস্যুতে চীনে বৈঠক

গাজায় চলমান যুদ্ধ বন্ধে কূটনৈতিক পর্যায়ে প্রচেষ্টা জোরদার হয়েছে। ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের শীর্ষ কর্মকর্তা এবং চার মুসলিম দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা সোমবার চীনে যাচ্ছেন।

গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, সৌদি আরব, জর্ডান, মিশর ও ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা সোমবার বেইজিং পৌঁছাচ্ছেন। এরা ছাড়াও অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশনের (ওআইসি) মহাসচিবও এখানে থাকবেন।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মাও নিং রোববার বলেছেন- আমরা এই সব অতিথিদের নিয়ে বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করব। ফিলিস্তিন ইস্যুতে আরব ও ইসলামি দেশগুলোর সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা হবে। প্রথম কাজ সাধারণ নাগরিকদের বাঁচানো। এ ছাড়া তাদের ত্রাণ সামগ্রী সরবরাহ করাও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

ভারত সাহায্য পাঠায়

ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধের মধ্যে, ভারত ফিলিস্তিনিদের মানবিক সহায়তার জন্য C-17 বিমানের মাধ্যমে মিশরে 32 টন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পাঠিয়েছে। অন্যদিকে, জাতিসংঘ জানিয়েছে যে আল-শিফা হাসপাতালে এখনও 25 জন কর্মী, 291 রোগী এবং 32 নবজাতক রয়েছেন। এসব শিশুর অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ঘোষণা করেছে যে গাজার আল-শিফা হাসপাতাল একটি মৃত্যু অঞ্চলে পরিণত হয়েছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট তাদের প্রতিবেদনে দাবি করেছে, জিম্মিদের মুক্ত করতে ইসরায়েল, আমেরিকা ও হামাসের মধ্যে শিগগিরই একটি চুক্তি হতে যাচ্ছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কাতারের মাধ্যমে হওয়া এই চুক্তির আওতায় জিম্মিদের মুক্তির বিনিময়ে 5 দিনের যুদ্ধবিরতি হতে পারে। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র বলেছেন, বর্তমানে কোনো চুক্তি হয়নি।

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন- হামাস শুধু নিজের জীবন বাঁচাতে চায়
প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু বলেছেন যে যুদ্ধের মধ্যে, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় থেকে ইসরায়েলের উপর ক্রমাগত চাপ বাড়ানো হচ্ছে। তিনি বলেন- গাজা ও বাইরে হামাসের লোকেরা আমাদের জন্য জীবন্ত লাশ। হামাস প্রধান ইসমাইল হানিয়ার কথা উল্লেখ করে প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োভ গ্যালান্ট বলেছেন- একজন হামাস যোদ্ধার হাতে রাইফেল থাকুক বা স্যুট পরা হোক, সবাই আমাদের জন্য সমান।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বলেন- আমরা স্থল অভিযানের দ্বিতীয় পর্যায়ে আছি এবং সেনাবাহিনী শীঘ্রই দক্ষিণ গাজাতেও হামাসের কাছে পৌঁছাবে। হামাস তার টানেল, বাঙ্কার এবং ঘাঁটি হারাচ্ছে। আমরা তাদের অনেক সিনিয়র কমান্ডারকে হত্যা করেছি। হামাস জানে শুধু যুদ্ধের ভাষা। তার এখন একমাত্র উদ্দেশ্য তার জীবন বাঁচানো। আমরা আমাদের জিম্মিদেরও শীঘ্রই মুক্ত করব।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর