প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||21শে জুন পর্যন্ত বাংলায় থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনী , ‘হিংসা’ মামলায় রাজ্যের কাছে রিপোর্টও চেয়েছে আদালত ||ধূমাবতী জয়ন্তী 2024: কেন ভগবান শিব তার নিজের অর্ধেক দেবী সতীকে বিধবা হওয়ার অভিশাপ দিয়েছিলেন?||ইতালিতে মহাত্মা গান্ধীর মূর্তি ভেঙেছে খালিস্তানিরা||এলন মাস্কের বিরুদ্ধে মহিলা কর্মচারীদের সাথে যৌন সম্পর্কের অভিযোগ||বাংলাদেশের নোবেল বিজয়ী মুহাম্মদ ইউনূসসহ অন্যদের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ||সালমান ও শাহরুখ খানকে নিয়ে বড় কথা বললেন ফরিদা জালাল||2027 সালের নির্বাচন একসঙ্গে লড়বে এসপি-কংগ্রেস, লোকসভার মতো বিধানসভায়ও কি দুই ছেলের জাদু দেখা যাবে?||আবার অরুণাচলের মুখ্যমন্ত্রী হবেন পেমা খান্ডু , সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বিজেপি বিধায়ক দলের বৈঠকে||Odisha CM Oath Ceremony : 24 বছর পর নতুন মুখ্যমন্ত্রী পেল ওড়িশা, শপথ নিলেন মোহন মাঝি||Daily Horoscope: : বৃহস্পতি নক্ষত্রের পরিবর্তনের কারণে, মেষ, কর্কট এবং তুলা রাশির জাতকদের জন্য সম্পদ বৃদ্ধির সম্ভাবনা থাকবে

ইসরায়েল জঙ্গিবিমান দিয়ে গাজার স্কুলে হামলা: নারী ও শিশুসহ ৩২ জন নিহত

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
ইসরায়েল

হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধের মধ্যে, ইসরাইল মধ্য গাজার একটি স্কুলে যুদ্ধবিমান দিয়ে বিমান হামলা চালিয়েছে। এই হামলায় এখন পর্যন্ত 32 জনের মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে হামাসের আল-আকসা মিডিয়া জানিয়েছে, হামলায় 39 জন প্রাণ হারিয়েছেন। টাইমস অব ইসরাইল জানায়, ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী আইডিএফ হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

আইডিএফ দাবি করেছে যে হামাসের নুখবা বাহিনীর যোদ্ধারা এই ইউএনআরডব্লিউএ স্কুলে আশ্রয় নিয়েছিল। বিমান হামলায় ইসরাইল তাকে লক্ষ্য করে। আল জাজিরা জানায়, নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে।

আসলে ইসরাইল ও হামাসের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ফিলিস্তিনিরা স্কুল ও হাসপাতালে আশ্রয় নিয়েছে। যুদ্ধের প্রথম কয়েক মাসে 10 লাখেরও বেশি গৃহহীন ফিলিস্তিনি গাজার স্কুলে আশ্রয় নিয়েছিল। ফিলিস্তিনের ওয়াফা নিউজ এজেন্সি জানায়, ইসরাইল যে স্কুলে হামলা চালায় তার কাছেই নুসিরাত শরণার্থী শিবির অবস্থিত।

ইসরায়েলের দাবি- হামলায় বেসামরিক নাগরিকদের বাঁচানোর চেষ্টা করা হয়েছে
আইডিএফ দাবি করেছে, স্কুলে হামলার আগে সম্পূর্ণ পরিকল্পনা করা হয়েছিল। এ সময় সেখানে উপস্থিত সাধারণ নাগরিকদের যাতে বেশি ক্ষতি না হয় সেদিকে বিশেষ নজর দেওয়া হয়। এ জন্য আকাশপথে এলাকা পর্যবেক্ষণ করা হয়। এছাড়া সেখানে উপস্থিত ইসরায়েলি গোয়েন্দা সূত্রের মাধ্যমেও তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে।

ইসরায়েলি হামলার পর গাজায় উপস্থিত হামাসের নেতৃত্বাধীন সরকারের মিডিয়া অফিসও বিবৃতি দিয়েছে। তিনি স্কুলে হামলাকে গণহত্যা বলে বর্ণনা করেছেন। মিডিয়া অফিসের মুখপাত্র ইসমাইল আল-থাবতা বলেছেন, আহতদের আল-আকসা শহীদ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গাজার ১৮৩টি স্কুলকে শরণার্থী শিবিরে রূপান্তরিত করা হয়েছে
আল জাজিরার প্রতিবেদন অনুসারে, জাতিসংঘের ত্রাণ ও কর্ম সংস্থা (UNRWA) যুদ্ধের আগে গাজায় 183 টি স্কুল পরিচালনা করেছিল। যুদ্ধের শুরু থেকেই এই স্কুল ভবনগুলো শরণার্থী শিবিরে রূপান্তরিত হয়েছে।

UNRWA সুবিধায় আশ্রয় নেওয়া 455 জন ইসরায়েলি হামলায় মারা গেছে যা 8 মাস ধরে অব্যাহত রয়েছে। এর আগেও ইসরাইল 11 ও 13 এপ্রিল তিনবার নুসরাত শরণার্থী শিবিরের স্কুলে হামলা চালায়। এ সময় ৭ জনের মৃত্যু হয়।

ইসরাইল এরই মধ্যে গাজার স্কুলে প্রথমবারের মতো হামলা চালিয়েছে
গত বছর ডিসেম্বরেও গাজার দুটি স্কুলে বিমান হামলা চালায় ইসরাইল। এতে ৫০ জন নিহত এবং শতাধিক মানুষ আহত হয়। 7 অক্টোবর থেকে, ইসরাইল 430 বার ইউএনআরডব্লিউএ চত্বরে আক্রমণ করেছে। সংবাদ সংস্থা এপি জানায়, নুসিরাত শরণার্থী শিবিরটি গাজা উপত্যকার মাঝখানে অবস্থিত। এটি 1948 সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের সময় গৃহহীন ফিলিস্তিনিদের জন্য নির্মিত হয়েছিল।

আল জাজিরা জানায়, এপ্রিলেও গাজার নুসিরাত শরণার্থী শিবিরে হামলা চালায় ইসরাইল। এতে 75 জন নিহত ও 348 জন আহত হন। এছাড়া ইসরায়েলি হামলায় 13 হাজারের বেশি অস্থায়ী বাড়ি ধ্বংস হয়েছে।

রাফাহ, গাজার দক্ষিণ প্রান্ত, ইসরায়েলের যুদ্ধের শেষ স্টপ।
7 মাস ধরে চলা ইসরাইল-হামাস যুদ্ধে এ পর্যন্ত প্রায় 36 হাজার 586 ফিলিস্তিনি মারা গেছে। তাদের মধ্যে 15  হাজারেরও বেশি শিশু রয়েছে। গাজায় ইসরায়েলের হামলার শেষ স্টপ রাফায় হামলার পর শহর ছেড়েছে আট লাখ মানুষ।

প্রকৃতপক্ষে, ইসরায়েল যুক্তি দেয় যে তারা এ পর্যন্ত হামাসের 24 টি ব্যাটালিয়ন ধ্বংস করেছে। কিন্তু এখনও রাফাহতে লুকিয়ে আছে 4 টি ব্যাটালিয়ন। তাদের নির্মূল করার জন্য রাফাহতে অভিযান পরিচালনা করা প্রয়োজন। তবে এরই মধ্যে উত্তর ও মধ্য গাজার অনেক স্থানেও হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। ইসরায়েলি সেনাবাহিনী দাবি করেছে, রাফাতে হামলার সময় অনেক হামাস যোদ্ধা সেখানে গিয়ে লুকিয়ে আছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর