প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||জীবন ও মৃত্যুর মধ্যে লড়াই করছেন স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকো||এয়ারটেলের 84 দিনের সস্তা প্ল্যান, আপনি ডেটা এবং OTT সহ আরও অনেক কিছু পাবেন||দ্বাপর যুগের কালিয়া নাগ এখনও বিদ্যমান, ভগবান কৃষ্ণের অভিশাপ থেকে তৈরি একটি পাথর||ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত,  করা হয়েছে জরুরি অবতরণ||পাঞ্জাবকে ৪ উইকেটে হারিয়ে হায়দরাবাদ: পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে পৌঁছেছে হায়দরাবাদ||অধীর সম্পর্কে খড়গের মন্তব্যে ক্ষুব্ধ বাংলার কর্মীরা, পোস্টারে কালি|| কেন রাজনীতি থেকে অবসর নিলেন ব্রিজ ভূষণ শরণ সিং?||Horoscope Tomorrow :  বৃষ, সিংহ, মকর, মীন রাশির মানুষ প্রতারিত হতে পারেন, জেনে নিন আগামীকালের রাশিফল||আইপিএল 2024 এর মধ্যে স্টার স্পোর্টসের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ করেছেন রোহিত শর্মা ||অনন্যা পান্ডেকে নিয়ে ‘গ্লো অফ ব্রেকআপ’? অভিনেত্রীর সাহসী ছবি নিয়ে ঝড়

Israel Hamas War : কালো ব্যাগে ইসরায়েলি সেনাদের ফেরত পাঠানোর হুমকি দিয়েছে হামাস

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
ইসরায়েলি

প্রায় এক মাস ধরে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল । ইসরায়েলি বাহিনী গাজায় প্রবেশ করে ভূখণ্ডের প্রধান শহর ঘেরাও করেছে বলে দাবি করেছে। এমন পরিস্থিতিতে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছে স্বাধীনতার পক্ষের সশস্ত্র সংগঠন হামাস। তিনি ইসরায়েলি সেনাদের ব্যাগে ফেরত পাঠানোর হুমকি দিয়েছেন। শুক্রবার (৩ নভেম্বর) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে রয়টার্স।

গাজা উপত্যকার উত্তরে অবস্থিত গাজা শহর এখন ইসরায়েলের আক্রমণের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। ইসরায়েল সেখানে হামাসের কমান্ড কাঠামো ধ্বংস করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এবং ফিলিস্তিনি বেসামরিক নাগরিকদের ভূখণ্ডের দক্ষিণ অংশে পালিয়ে যেতে বলেছে।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, গাজায় প্রবল বিস্ফোরণের মধ্যে ইসরায়েলের সামরিক মুখপাত্র রিয়ার অ্যাডমিরাল ড্যানিয়েল হাগারি সাংবাদিকদের বলেছেন, “তাদের বাহিনী হামাসের প্রধান কেন্দ্র গাজা শহর অবরোধ সম্পন্ন করেছে।” বর্তমানে যুদ্ধবিরতির কোনো ধারণা নেই।অন্যদিকে, স্বাধীনতার পক্ষের সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস ইসরায়েলি বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে। হামলার পর হামাস যোদ্ধারা সুড়ঙ্গ থেকে বেরিয়ে আবার সুড়ঙ্গে প্রবেশ করছে। হামাসের এ ধরনের হামলায় ইসরায়েলি সেনারাও হতাহত হচ্ছে।

হামাসের সশস্ত্র শাখার মুখপাত্র আবু উবাইদাহ বৃহস্পতিবার এক টেলিভিশন ভাষণে বলেছেন, গাজায় নিহত ইসরায়েলি সৈন্যের সংখ্যা সেনাবাহিনীর ঘোষিত সংখ্যার চেয়ে অনেক বেশি। তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন, “আপনার সৈন্যদের কালো ব্যাগে ফেরত পাঠানো হবে।”এর আগে হামাস ঘোষণা করেছিল যে গাজা উপত্যকা হবে ইসরায়েলের রাজনৈতিক ও সামরিক নেতৃত্বের ‘কবরস্থান’। “গাজা উপত্যকাকে ইসরায়েলের সামরিক ও রাজনৈতিক নেতৃত্বের কবরস্থানে পরিণত না করা পর্যন্ত আমরা থামব না,” আবু উবায়দাহ গত মঙ্গলবার একটি টেলিভিশন ভাষণে বলেছিলেন।

ইসরায়েল বলেছে যে গত শুক্রবার গাজায় স্থল অভিযান সম্প্রসারিত হওয়ার পর থেকে হামাসের হামলায় তারা 18 সৈন্য হারিয়েছে এবং কয়েক ডজন হামাস যোদ্ধাকে হত্যা করেছে।

ইসরায়েলের সামরিক প্রকৌশলীদের প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইদ্দো মিজরাহি বলেছেন, ইসরায়েলি সেনারা ল্যান্ডমাইন এবং বুবি ফাঁদের মুখোমুখি হচ্ছে। “হামাস এসব বিষয়ে অনেক কিছু শিখেছে এবং নিজেকে ভালোভাবে প্রস্তুত করেছে,” তিনি বলেন।এদিকে, হামাস এবং তার সহযোগী ইসলামিক জিহাদের যোদ্ধারা তাদের গোপন সুড়ঙ্গ থেকে বের হয়ে ইসরায়েলি বাহিনীর ওপর হামলা চালাচ্ছে। হামলার পর তারা সঙ্গে সঙ্গে সুড়ঙ্গের ভেতরে চলে যায়। গাজার কিছু বাসিন্দার বক্তব্য এবং হামাস ও ইসরায়েলের প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা দৃশ্য।

হামাসের একটি সামরিক ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে একজন যোদ্ধা একটি টানেল থেকে বেরিয়ে আসছে এবং গাজার একটি মাঠে একটি ট্যাঙ্কে একটি বিস্ফোরক ডিভাইস রাখছে। তারপরে একটি বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায় এবং ট্যাঙ্কটি সুড়ঙ্গে ফিরে আসার সাথে সাথে যোদ্ধা এটিতে একটি অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক মিসাইল নিক্ষেপ করে।উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর থেকে ইসরায়েলি বিমান বাহিনী গাজায় ব্যাপক হামলা চালাচ্ছে। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভূখণ্ডে ইসরাইলি হামলায় নিহত ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা ৯ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃতদের মধ্যে ৩ হাজার ৭৬০ জন শিশু।

এছাড়া ইসরায়েলি হামলায় ৩২ হাজার ফিলিস্তিনি আহত হয়েছে। ইসরায়েলি হামলা থেকে গাজার কোনো অবকাঠামো রেহাই পায়নি। তারা মসজিদ, গির্জা, স্কুল, হাসপাতাল, উদ্বাস্তু শিবির এবং বেসামরিক বাড়িঘরে সর্বত্র হামলা চালাচ্ছে।একই সঙ্গে ৮ অক্টোবর থেকে গাজায় সম্পূর্ণ অবরোধ আরোপ করেছে ইসরাইল। ফলে ফিলিস্তিনি বেসামরিক নাগরিকরা খাদ্য, জ্বালানি, পানীয় জল ও ওষুধের সংকটের সম্মুখীন হচ্ছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর