প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||হংকং এভারেস্ট এবং MDH মশলা নিষিদ্ধ||ইউক্রেনে আমেরিকা সাহায্য পাঠাতেই ক্ষুব্ধ পুতিন, বললেন এই বড় কথা||আরসিবি বনাম কেকেআর ম্যাচে নতুন মোড়, আম্পায়ার কি আরেকটি নো বল দিননি? প্রশ্ন তুলেছেন ভক্তরা||মালদ্বীপের সংসদীয় ভোটে জয়ী  চীনপন্থী নেতা মুইজ্জুর দল||ইসরায়েলি সেনা ব্যাটালিয়নের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে আমেরিকা||  আবার পাঞ্জাবের পক্ষে অদম্য হয়ে উঠেছেন রাহুল তেওয়াতিয়া, আরেকটি পরাজয়ের মুখে পড়েছে পাঞ্জাব কিংস||বসিরহাটে রাম নবমীর মিছিলে যোগ দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিক, পাশে রেখা পাত্র||অক্ষয় তৃতীয়ার উপবাস কীভাবে শুরু হয়েছিল, জেনে নিন এর সাথে সম্পর্কিত পৌরাণিক ঘটনাগুলি||রবিবার গরমে ঝলসে গেল দক্ষিণবঙ্গ , পানাগড়কে হার মানল বাঁকুড়া||জগন্নাথ রথযাত্রা 2024 : কবে শুরু হচ্ছে জগন্নাথ রথযাত্রা ? এক ক্লিকেই জেনে নিন সব তথ্য

আচমকা স্কুল পরিদর্শনে রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোস

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
আচমকা স্কুল পরিদর্শনে রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোস

আচমকা স্কুল পরিদর্শনে রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোস। গঙ্গা পেরিয়ে, টোটোয় চেপে হাওড়া একটি বেসরকারি স্কুলে উপস্থিত হন তিনি। যাবার সময় স্কুলের প্রশংসা করে বলে গেলেন “থ্রি চিয়ার্স টু টিচার্স, থ্রি চিয়ার্স টু স্টুডেন্টস”।

পুলিশ প্রশাসনকে কোন আগাম খবর না দিয়ে শনিবার সকালে রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস প্রাতঃ ভ্রমণের পোশাক পড়েই চলে আসেন মধ্য হাওড়ার বনবিহারী বসু রোডের একটি বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে (জৈন বিদ্যালয়ে)। স্থানীয় সূত্রে খবর এদিন তিনি লঞ্চে চেপে প্রথমে রামকৃষ্ণপুর ঘাটে আসেন। সেখান থেকে টোটো চেপে পৌনে দশটা নাগাদ স্কুলের গেটে পৌঁছান। রাজ্যপাল প্রথম এই স্কুলের ভেতর ঢুকে সরাসরি নোটিশ বোর্ড এবং ছোট ছোট পড়ুয়াদের শিল্পকর্ম দেখেন। প্রধান শিক্ষিকা মৌসুমী ঘোষ এবং অন্যান্য শিক্ষক শিক্ষিকারা সেই সময় ক্লাস নিচ্ছিলেন। খবর পেয়ে প্রধান শিক্ষিকা দৌড়ে নিচে নেমে আসেন। এরপর রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস স্কুল ঘুরে দেখেন এবং বিভিন্ন ক্লাসে যান। সেখানে কিভাবে পড়াশোনার পাশাপাশি ছোট ছোট পড়ুয়াদের ছবি আঁকা, গান এবং মার্শাল আর্টের ট্রেনিং দেওয়া হচ্ছে তা তিনি ঘুরে ঘুরে দেখেন। একইসঙ্গে তিনি শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলেন।

রাজ্যপালের হঠাৎ এই স্কুলে আসায় কার্যত বিস্মিত সকলেই। এদিন তিনি স্কুলে চা পান করেন এবং পড়ুয়াদের চকলেট বিতরণ করেন। মেয়েদের বিভাগের প্রধান শিক্ষিকা মৌসুমী ঘোষ বলেন তারা বিশ্বাস করতে পারছিলেন না রাজ্যপাল তাদের স্কুলে এসেছেন। আগে থেকে তাদের কাছে কোন খবরই ছিল না। তিনি আসার পর ক্লাসরুম ঘুরে দেখেন। কিভাবে ছাত্র-ছাত্রীরা ক্লাস করছেন এবং শিক্ষক শিক্ষিকারা তাদের পড়াচ্ছেন তা তিনি খোঁজখবর নেন। তবে রাজ্যপালের সবচেয়ে ভালো লেগেছে স্কুলে মেয়েদের নিজেদের নিরাপত্তার জন্য মার্শাল আর্টের প্রশিক্ষণ। এদিন রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস বলেন তিনি বাংলাকে চেনার জন্য স্কুলে এসেছেন। এখানে এসে তার খুবই ভালো লেগেছে। বাংলার ছাত্রছাত্রীরা পৃথিবীর সেরা। এরাই দেশের ভবিষ্যৎ নাগরিক। এটা বলা হয়ে থাকে পড়ুয়ারা যদি কিছু না শেখে তবে শিক্ষকরা কিছু শেখায়নি। এখানে ছাত্রছাত্রীরা শিখছে মানে শিক্ষকরা শেখাচ্ছেন।

ভারত এবং বিদেশের সর্বশেষ খবর, আপডেট এবং বিশেষ গল্প পড়ুন এবং নিজেকে আপ-টু-ডেট রাখুন, Google NewsX (Twitter), Facebook-এ আমাদের অনুসরণ করুন, https://prabhatbangla.com/

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর