প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
|| অমিত শাহের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন 11 জন মুসলিম প্রার্থী, দেখুন কে বাজি খেলেছে এবং কে স্বতন্ত্র||পাকিস্তানে ভারী বর্ষণে ৮৭ জনের মৃত্যু, সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর||রাহুল গান্ধীর দিকে কটাক্ষ করলেন কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন, মনে করিয়ে দিলেন তাঁকে তাঁর ঠাকুরমার কথা||ইরান যে দেশটিকে হুমকি মনে করে, ইসরাইল তার সাহায্য নিয়েছিল হামলার জন্য|| শীঘ্রই একটি যৌথ ইশতেহার জারি করবে INDIA জোট, এই 7টি বড় প্রতিশ্রুতি দেওয়া হবে||জেনে নিন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সম্পত্তি কত!|| নাগাল্যান্ডের 6টি জেলায় একটিও ভোটার ভোট দেয়নি, পৃথক রাজ্যের দাবি উঠেছে; জেনে নিন কী বললেন মুখ্যমন্ত্রী||‘মানুষ রেকর্ড সংখ্যায় এনডিএ-কে ভোট দিচ্ছে’, প্রথম দফার ভোটের পরে বললেন প্রধানমন্ত্রী মোদি||বাচ্চাদের পর্নোগ্রাফি দেখা অপরাধ নাকি? পড়ুন সুপ্রিম কোর্টের বড় সিদ্ধান্ত||কেএল রাহুলের শক্তিতে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে লখনউয়ের বড় জয়, 8 উইকেটে পরাজিত সিএসকে

Lok Sabha 2024 : মেদিনীপুর কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী না, কোন ব্যবস্থা নেবেন দিলে ঘোষ 

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
দিলীপ ঘোষ 

বর্তমানে বাংলার দিল্লিবাড়ির লড়াইয়ে মেদিনীপুর আসনে বিশেষ নজর দেওয়া হচ্ছে। তৃণমূল জুন মাল্যকে তার প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করেছে, তবে বিজেপি এখনও শেষ লোকসভা নির্বাচনে জয়ী দিলীপ ঘোষের নাম ঘোষণা করেনি। বাংলার প্রথম তালিকায় তার নাম ছিল না। 2 এপ্রিল সেই তালিকা প্রকাশের পর থেকেই রাজ্য বিজেপিতে নানা রকম জল্পনা শুরু হয়েছে। যা এখনো চলছে। সেই জল্পনাতেই রয়েছে নানা প্রশ্ন। দিলীপকে প্রার্থী করবে না বিজেপি? দিলীপকে কি মেদিনীপুর ছেড়ে অন্য আসনে পাঠানো যাবে? আর এত কিছু হলে দিলীপ কী করবে? এমন সব জল্পনা-কল্পনার মধ্যেই আনন্দবাজার অনলাইনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজের সিদ্ধান্ত জানান তিনি। দিলীপ বলেন, “প্রার্থী কিছু না করলে আমার কিছু যায় আসে না। দল আমাকে যে সুযোগই দেবে না কেন, আমি তা করা ছেড়ে দেব।

কিন্তু এখন দিলীপ একটু অন্যরকম। আগের মতো দলীয় নেতৃত্বের প্রতি ‘হতাশা’ নেই। অনেকেই বলছেন, এবার দিলীপের কেন্দ্র বদল হতে পারে। এই প্রসঙ্গে দিলীপ বিজেপির এক অনুগত সৈনিকের সুরে বলেন, “এই দল সিদ্ধান্ত নেবে।” আমি সবসময় দলের সিদ্ধান্ত মেনে এসেছি। এর জবাবে দিলীপ বলেন, “দল যা করুক, তাই হবে। সিদ্ধান্ত নিয়েছে।” দল সিদ্ধান্ত নেয়। আমার কিছু বলার নেই. এটা টিকিট দেওয়ার মতো নয়। সবকিছুর জন্য প্রস্তুত থাকুন। রাজনীতিতে এলে সব দরজা খোলা রাখতে হবে। যে দরজা খোলা রাখতে পারে না তার পক্ষে এটি কঠিন।”দিলীপ দরজা খুলল না। দিলীপের মুখ থেকে এর আগেও বহুবার শোনা গেছে, “দল আমাকে না চাইলে আমি প্রচারক হয়ে ফিরে যাবো।” আমার ব্যাগ-বিছানা ভর্তি। কিন্তু সেই দরজা কি দিলীপের জন্য? খোলা আছে? ?

নিজের মাঠে কাটানো সময়টা দিলীপের জন্য ছিল এক পরীক্ষা। তিনি বলেন, “আমি প্রতিদিন সর্বভারতীয় স্তরে, রাজ্য স্তরের কর্মসূচিতে যেতাম। সেই মানুষটি এখন প্রতিদিন গ্রামে যাচ্ছে, গ্রামে গ্রামে ঘুরে বেড়াচ্ছে, সেখানে চা খাচ্ছে, সেখানে থেমে আছে, এটা কি কম বড় পরীক্ষা? নিজেকে একটি ছোট জায়গায় সীমাবদ্ধ করুন। তবে আমি জানি শক্তি আছে।” তিনি তার নির্বাচনী এলাকার প্রায় দেড় হাজার-1600 গ্রাম পরিদর্শন করেছেন এবং দাবি করেছেন, ”অনেক লোক যারা একই আসন থেকে পাঁচ-পাঁচবার এমপি হয়েছেন, তারা তা করেন না। কর।” তার দলের অবস্থাও কি একই? নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করে দিলীপ বলেন, “দল এমন কর্মসূচি দেয় যা করতে হয়।” এটা ‘গ্রাম চলো অভিযান’। সবাই গ্রামে গ্রামে গেল। দিল্লির অনেক লোক আমাকে বলেছিল যে গ্রামে যেতে খুব ভাল লাগছে। আমি তাদের বলি, আমি এটা নিয়মিত করি।

আরএসএস প্রচারক হিসেবে 32 বছর পর রাজনীতিতে আসেন। রাজ্য দলের সর্বোচ্চ পদের পর সর্বভারতীয় উপরাষ্ট্রপতি ড. বিধায়ক ও সাংসদ। তিনি দ্বিতীয়বার এমপি হতে পারবেন কি না তা নিয়ে এখনো প্রশ্ন রয়েছে। তবে দিলীপ জানিয়েছেন, মেদিনীপুরের কর্মীরা চান তিনি সেখানে প্রার্থী হন। তিনি বলেন, ‘সবাই জিজ্ঞেস করছে কবে নাম ঘোষণা হবে?’ আমরা প্রচারণা চালাব। সবাইকে বলছি, দলই সিদ্ধান্ত নেবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর