প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||ইংলিশ চ্যানেল পার হতে গিয়ে শিশুসহ পাঁচজনের মৃত্যু, সৈকতে পাওয়া গেছে মৃতদেহ ||এখন এই দলের খেলা নষ্ট করতে পারে RCB, প্লে-অফে সংকট হতে পারে||বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধনী বিল স্বাক্ষর না করায় রাজ্যপালের বক্তব্য শুনতে নোটিশ জারি করল সুপ্রিম কোর্ট||Horoscope Tomorrow : মেষ, কর্কট, তুলা রাশির শত্রুদের থেকে সাবধান, জেনে নিন সব রাশির রাশিফল||Airtel নিয়ে এল শক্তিশালী প্ল্যান, 184টি দেশে কাজ করবে আনলিমিটেড ইন্টারনেট, দীর্ঘ আলোচনা হবে||T20 World Cup 2024 স্কোয়াডে দিনেশ কার্তিককে জায়গা দেওয়া কতটা সঠিক, জেনে নিন পরিসংখ্যান||‘এর জন্য আপনাকে মূল্য দিতে হবে…’, প্রধানমন্ত্রী মোদীর বক্তব্যে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়||Shahrukh khan return as don: সুহানা খানের কিং-এ ডন চরিত্রে অভিনয় করবেন শাহরুখ খান||14 তম তালিকা প্রকাশ করেছে বিজেপি , লাদাখ থেকে টিকিট পাননি জামিয়াং সেরিং নামগিয়াল||গান্ধী পরিবারের মতো নিজের দলকে ভোট দিতে পারবে না উদ্ধব-কেজরিওয়ালের পরিবার

‘ইচ্ছার বিরুদ্ধে’ পরিবর্তনকে চ্যালেঞ্জ করলেন দিলীপ ঘোষ, বলেন, আমি মেদিনীপুরে দাঁড়াতে চেয়েছিলাম

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
দিলীপ ঘোষ

বিজেপি তাকে যে দায়িত্ব দিয়েছে তা তিনি পূর্ণ নিষ্ঠার সাথে পালন করবেন। দিলীপ ঘোষ বলেন, আমি মেদিনীপুরে দাঁড়াতে চেয়েছিলাম। এর জন্য আমি মানসিকভাবে প্রস্তুত ছিলাম। কিন্তু দল মনে করেছে আমার এখানে দাঁড়ানো দরকার। তাই এই কেন্দ্র দিয়েছে।রবিবার বাংলার দ্বিতীয় দফতরের প্রার্থীদের তালিকা ঘোষণা করেছে বিজেপি। তালিকায় ঘোষিত 19টি আসনের মধ্যে দিলীপের পুরনো লোকসভা কেন্দ্র মেদিনীপুরও রয়েছে। কিন্তু ওই আসনের প্রার্থী নন মেদিনীপুরের বিদায়ী সাংসদ দিলীপ। আসানসোলের বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্র পালকে প্রার্থী করা হয়েছে মেদিনীপুর থেকে। তার বদলে দিলীপকে বর্ধমান-দুর্গাপুর আসনে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। দলের এই সিদ্ধান্তে কি ক্ষুব্ধ দিলীপ? তার কাছে জানতে চাইল। এর জবাবে দিলীপ প্রথমে বলেন, দল আমার ওপর আস্থা রেখেছে। তাই হার্ড সেন্টার দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমি চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। মোদীজি যেখানে দাঁড়াবেন আমি সেখানেই দাঁড়াব। কিন্তু একই সঙ্গে তিনি মনে করিয়ে দেন যে তিনি যখন মেদিনীপুরে জিতেছিলেন, তখন সেখানে বিজেপি ছিল না।

আসলে, 2019 সালে, দিলীপ মেদিনীপুরে প্রথম প্রার্থী হয়েছিলেন। সম্প্রতি এক ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকারে তিনি আনন্দবাজার অনলাইনকে বলেন, তারপর থেকে তিনি মেদিনীপুর কেন্দ্রে এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে ঘুরেছেন। এও বলেন, তিনি জনগণের নেতা। মেদিনীপুরে তার কেন্দ্রের প্রতিটি গ্রাম তাকে চেনে। দিলীপ বললেন, “কোন গ্রামে গিয়ে জানতে চাইলে দিলীপ ঘোষ এখানে এসেছিলেন কি না? লোকে বলবে হ্যাঁ, তিনি এসেছিলেন।” মেদিনীপুরে তাঁর জায়গায় প্রার্থী করা হয়েছে অগ্নিমিত্রাকে। তাকে জিজ্ঞেস করা হয় অগ্নিমিত্রাকে কিছু বলেছেন কি না? দিলীপ উত্তর দিল, “ও আশীর্বাদ নিতে এসেছিল।” আমি বললাম, ‘যত খুশি মেদিনীপুর সিট রেডি। গিয়ে যুদ্ধ কর।

তার কণ্ঠে কি একটু রাগ ছিল? প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পরই দিলীপকে ঘিরে মিডিয়ার তোড়জোড়। তাকে লক্ষ্য করার পর সঙ্গে সঙ্গে প্রশ্ন এল যে এখন কি আপনার আসন থেকে অগ্নিমিত্রা পাল জিতবেন? সঙ্গে সঙ্গে পাল্টে গেল দিলীপের সুর। “আমার এখানে আপনাকে বলার কিছু নেই,” তিনি স্পষ্ট করে বললেন। আমিও একজনের আসনে চলে গেছি। আমাদের দলের সিনিয়র নেতা আহলুওয়ালিয়া জি এখানে ছিলেন। দল তাকে আরেকটি কাজ দেবে। আমাকে বলেছিল যে আমি সেখানে লড়াই করার জন্য লড়াই করছিলাম। তিনি আমাকে বললেন, আমি এসে আপনাদের সঙ্গে সংবাদ সম্মেলন করব। দোয়া চাইলাম।

বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রকে এক ধরনের চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিচ্ছেন দিলীপ। তিনি বলেছেন, জয় নিশ্চিত। নতুন মাটি নিয়ে চিন্তা নেই। প্রকৃতপক্ষে, দিলীপ বলেছিলেন, “তিনি বাংলার কাকদ্বীপ থেকে কোচবিহার পর্যন্ত সর্বত্র পরিচিত।” আমি কাল বর্ধমানের উদ্দেশ্যে রওনা দেব। লাশ সেখানে ফেলে দেব। দিলীপকে নিজের সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে দিলীপ বলেন, “আমি চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। আমি কাউকে ভয় পাই না, মোদীজি যেখানেই দাঁড়াবেন আমি সেখানেই দাঁড়াব। কীর্তি আজাদ কখন ক্রিকেট খেলেছেন কেউ জানে না। তাকে কেউ চেনে না। এখানে কোনো লোক নেই, তাই বহিরাগতদের ভাড়া করতে হবে।কিন্তু লড়াই নতুন মাঠে। সময় ফুরিয়ে যাচ্ছে? জবাবে দিলীপ বলেছিলেন, আলুওয়ালিয়াজি এই কেন্দ্রটি 15 দিনে জিতেছেন, আমার কাছে দেড় মাস আছে। তা ছাড়া পশ্চিমবঙ্গের গোটা জমি বিজেপির জন্য প্রস্তুত। বাকিরা বেঁচে থাকার জন্য লড়াই করছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর