প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
|| এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতেছেন দীপা কর্মকার||‘KKR  এর  জয়ের জাদু শিখিয়ে আইপিএলের ‘বাদশা’ হলেন শাহরুখ!||আইপিএল 2024  পার্পল ক্যাপ জিতেছেন হারশাল প্যাটেল এই কিংবদন্তির সমান দ্বিতীয়বারের মতো পুরস্কার||IPL 2024 Final:  10 বছর পর শিরোপা জিতেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স, জয়ের নায়ক এই খেলোয়াড়রা||IPL 2024: ফাইনালে হায়দরাবাদের লজ্জাজনক পরাজয়, এই পরাজয়ের 5জন দোষী||মিচেল স্টার্ক: 2 কোটি বেস প্রাইস, 24.75 কোটি দাম…যখন নিলামে  ট্রোলড হয়েছিলেন গৌতম গম্ভীর||Cyclone Remal : বাংলায় মধ্যরাতে  আঘাত হানবে ‘রেমাল’ , বাতাস বইবে 135 বেগে, পর্যালোচনা সভা করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী||IPL 2024 Final SRH v KKR LIVE : তৃতীয়বারের মতো আইপিএল শিরোপা জিতেল KKR||Cyclone Remal : রেমাল এখন ক্যানিং থেকে ১৯০ কিলোমিটার দূরে, ছয়টি দক্ষিণ জেলায় রেড অ্যালার্ট, উত্তরও প্রভাবিত||Horoscope Tomorrow :  মেষ, বৃষ, কন্যা, ধনু রাশির মানুষদের এই কাজগুলি করা উচিত নয়, জেনে নিন আপনার আগামীকালের রাশিফল

Mamata Banerjee : বিশ্বভারতী ফলক বিতর্কে কেন্দ্রকে ‘পরামর্শ’ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিতর্কিত বিশ্বভারতী ফলক সরানোর জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে ‘পরামর্শ’ দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী তাঁর এক্স হ্যান্ডেলে (আগের টুইটার) এই বার্তা দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান আধিকারিকদের খোঁড়াখুঁড়ি করা ছাড়াও, মুখ্যমন্ত্রী ফলকটিকে ‘অহংকারী, দাম্ভিক’ বলে অভিহিত করেছেন এবং কেন্দ্রকে এটি সরানোর পরামর্শ দিয়েছেন।

শনিবার সন্ধ্যায় মমতা তার এক্স হ্যান্ডেলে পোস্ট করেছেন। সেখানে তিনি লেখেন, “দ্য ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট – বিশ্বভারতী যা গুরুদেব রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শান্তিনিকেতনে নির্মাণ করেছিলেন এখন ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃত।” কিন্তু বর্তমান কর্তৃপক্ষ সেই জায়গায় স্মৃতিসৌধ হিসেবে যে ফলক বসিয়েছে, তাতে গুরুদেবের নাম ছাড়াও উপাচার্যের নামও রয়েছে!” মুখ্যমন্ত্রীর মতে, এটা রবীন্দ্রনাথের অপমান। বার্তার শেষে মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রীয় সরকারকে পরামর্শ দেন এবং বলেন, ‘কেন্দ্রীয় সরকারকে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে যে ঔদ্ধত্য ও প্রদর্শনবাদের এই উদাহরণটি সরিয়ে ফেলুন এবং এমন ব্যবস্থা করুন যাতে গুরুদেব তাঁর প্রাপ্য সম্মান পেতে পারেন। দেশ।’

প্রসঙ্গত, গত ২৭ সেপ্টেম্বর ইউনেস্কো শান্তিনিকেতনকে ‘বিশ্ব ঐতিহ্য’ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। বিশ্বভারতীর কর্মকর্তারা তখন ঐতিহ্যবাহী উপাসনালয়, রবীন্দ্র ভবন এবং গৌড় কমপ্লেক্সে তিনটি শ্বেতপাথরের ফলক স্থাপন করেন। এতে বলা হয়েছে, ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট। নীচে দুটি নাম দেওয়া হল, একটি আচার্য এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এবং অন্যটি উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর। কোথাও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামের চিহ্ন নেই। এ ঘটনা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। রাজ্যপাল বিশ্বভারতীর আধিকারিকদের কাছে জবাবদিহিরও দাবি করেছেন। কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর নির্দেশেই শান্তিনিকেতনে রবীন্দ্রনাথের ছবি নিয়ে তৃণমূলের প্রতিবাদ কর্মসূচি চলছে।

কর্মসূচির দ্বিতীয় দিন শনিবার। ধর্নায় উপস্থিত ছিলেন বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার আশীষ ব্যানার্জি, সাংসদ অসিত মাল সহ বহু মানুষ। তিনি বিশ্বভারতীর বর্তমান উপাচার্যেরও সমালোচনা করেন। আশীষ বলেন, এটা আমাদের প্রতিবাদ। বিশ্বভারতীতে কি রবীন্দ্রনাথ ছাড়া আর কিছু আছে? সেটাই সৃষ্টি। উপাচার্য বিতর্ক পছন্দ করেন, বিতর্কিত থাকতে চান। এজন্য তারা এসব করছে। আমরা সম্মিলিতভাবে তাদের প্রতিবাদে যোগ দিয়েছি। তারা সম্প্রতি ফলক নিয়ে যা করেছে তা অন্তত বলতে লজ্জাজনক। প্রতিবাদ করেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী বারবার বলছেন এটা রবীন্দ্রনাথের অপমান। আমাদেরও একই মতামত। এই নোংরামি বন্ধ করুন। আমরা বলতে চাই আপনি যা ভুল করছেন তা ক্ষমার অযোগ্য।

স্থানীয় নেতা গদাধর হাজরা একই দিনে বোলপুরে তৃণমূলের একটি প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন যে মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দিলে বীরভূম থেকে উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীকে মুক্তি দিতে তার পাঁচ মিনিটও লাগবে না। উপাচার্য বিদ্যুৎকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, “আমরা তৃণমূল কংগ্রেস। আপনি যদি চান, আপনি যেখানে থাকেন সেখান থেকে আপনাকে নিতে আমাদের পাঁচ মিনিটও সময় লাগবে না। ধর্নার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেজন্য প্রতিবাদ করছি। নেতাজি যদি একবার আদেশ দেন, আপনি যে বাড়িতে থাকেন এবং বোলপুর থেকে আপনাকে টেনে নিয়ে যেতে আমাদের বেশি সময় লাগবে না।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর