প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||Odisha CM Oath Ceremony : 24 বছর পর নতুন মুখ্যমন্ত্রী পেল ওড়িশা, শপথ নিলেন মোহন মাঝি||Daily Horoscope: : বৃহস্পতি নক্ষত্রের পরিবর্তনের কারণে, মেষ, কর্কট এবং তুলা রাশির জাতকদের জন্য সম্পদ বৃদ্ধির সম্ভাবনা থাকবে||শাহবাজ সরকারের সঙ্গে আলোচনার জন্য প্রস্তুত ইমরান খান|| টিএমসি নেতা সোহম চক্রবর্তীর অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে মারধরের মামলায় হাইকোর্টে রেস্তোরাঁর মালিক||গঙ্গা স্নানের সময় এই ভুলগুলি করবেন না, ঘরে দারিদ্র্য আসবে, পাপের অংশীদার হতে পারেন||মহেশ নবমী তারিখ 2024: জুন মাসে এই দিনে মহেশ নবমী পালিত হবে, জেনে নিন তারিখ, শুভ সময় এবং তাৎপর্য||মহাভারতের কথাঃ ভীম মৃত্যুর কারণে নয়… তাহলে দুর্যোধন মারা গেলেন কিভাবে?||24 ঘন্টার মধ্যে হিজবুল্লাহ কমান্ডারের মৃত্যুর প্রতিশোধ, ইসরায়েলে 200টি রকেট নিক্ষেপ||কাউকে না বলে X-এর যেকোনো পোস্টে লাইক দিন; আসছে আশ্চর্যজনক বৈশিষ্ট্য||মোদী মন্ত্রিসভার 80% মন্ত্রী স্নাতক বা অধিক শিক্ষিত, 11 জন মন্ত্রী দ্বাদশ পাস; 39% বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা

Kanpur : কানপুরে অপহরণের পর খুন ব্যবসায়ীর ছেলে, ৩০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
কানপুর

কানপুরের এক বড় ব্যবসায়ীর ছেলেকে অপহরণের পর খুন করা হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় কোচিংয়ে চলে যান তিনি। পুলিশ সূত্রে খবর, মঙ্গলবার সকালে একটি বাড়ি থেকে ওই ছাত্রের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। তার বিরুদ্ধে ছাত্রকে অপহরণের অভিযোগ তুলেছিল পরিবার।

জয়পুরিয়া স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র কুশাগরা রায়পুরা থানার আচার্য নগরে থাকত। সোমবার সন্ধ্যায় কোচিংয়ের জন্য রওনা হন। কিন্তু ফেরেনি। দীর্ঘক্ষণ বাড়িতে না পৌঁছালে পরিবারের লোকজন ফোন করলেও সুইচ বন্ধ হলে অপ্রীতিকর কিছু হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এরপর কুশাগড়ার বন্ধুবান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে তল্লাশি চালায় পরিবার। কিন্তু, কিছুই পাওয়া যায়নি।

এসময় বাড়ির বারান্দায় পাথরে মোড়ানো একটি চিঠি পাওয়া যায়। এই চিঠিতে লেখা ছিল আল্লাহ-হু-আকবার। 30 লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। আরও লেখা ছিল, ছেলে চাইলে টাকা দাও। চিঠি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিবারে তোলপাড় শুরু হয়। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়।

পুলিশ ও পরিবারের সদস্যরা সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করলে একজন মুখোশধারী ব্যক্তিকে বাড়িতে চিঠি ছুঁড়তে দেখা যায়। এরপর রাতেই পরিবারের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে ওই নারী টিউশন শিক্ষিকা ও তার ভাইকে আটক করে পুলিশ। তাদের দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছাত্রকে উদ্ধারে ব্যাপক অভিযান চালায় পুলিশ। অবশেষে মঙ্গলবার সকালে ওই ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। কোন আসামির বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে? পুলিশ এ বিষয়ে কিছু জানায়নি।

‘সন্তান নিরাপদ রাখতে চাইলে 30 লাখ রেডি রাখুন’
আচার্য নগরের বাসিন্দা বস্ত্র ব্যবসায়ী মনীশ কানোদিয়ার পি-রোডে কাপড়ের একটি বড় শোরুম রয়েছে। মনীশের ছেলে কুশাগড়া ক্যান্টের জয়পুরিয়া স্কুলের ছাত্র ছিল। প্রতিদিনের মতো বিকেল 4 টায় স্কুটিতে করে স্বরূপ নগর থেকে কোচিং করতে রওনা হলেও ফিরে আসেননি। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় মা কোনো কাজে ফোন করলে সুইচ অফ ছিল।

তিনি মনীশ ও শিশুটির বাবা সঞ্জয় কানোদিয়াকে বিষয়টি জানান। বাড়িতে পাথরে মোড়ানো একটি চিঠি দেখতে পেয়ে পরিবারের সদস্যরা তল্লাশি চালাচ্ছিলেন। পরিবারের সদস্যরা চিঠিটি খুললে 30 লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। অপহরণকারী লিখেছিল, শিশুটিকে নিরাপদে রাখতে চাইলে টাকা রেডি রাখুন। শীঘ্রই আপনাকে ফোন করে অবস্থান জানাবে।

‘টাকা হাতে রাখো, 1 ঘণ্টা পর ছেলে তোমার কাছে থাকবে’
চিঠিতে লিখেছেন… আমি চাই না তোমার উৎসব নষ্ট হোক। তুমি আমার হাতে টাকা দাও আর 1 ঘন্টা পর ছেলে তোমার সাথে থাকবে। আমরা আপনাকে আগামীকাল ডাকব… আল্লাহু আকবার। এই ছেলের গাড়ি এবং মোবাইল দুটোই আপনার বাড়ির কাছে হোটেল সিটি ক্লাবের কাছে। আমি তোমার কোনো ক্ষতি চাই না। বারবার বলছি ঘাবড়াবেন না। আপনি আল্লাহর উপর ভরসা রাখুন।

সিসিটিভিতে ধরা পড়েছে চিঠি নিক্ষেপকারী
যে যুবক চিঠিটি ব্যবসায়ীর বাড়িতে ছুড়ে দিয়েছিল সে স্কুটারে এসেছিল। সে সিসিটিভিতে ধরা পড়েছে। রাত 08:56 টায়, জিন্স এবং শার্ট পরা এক যুবক একটি কালো স্কুটারে আসে। পাড়ায় ঘুরে ঘুরে দেখে। চারিদিকে নীরবতা অনুভব করলে চিঠিটা ছুড়ে ফেলে। যুবকের পরনে হেলমেট ছিল এবং রুমাল দিয়ে মুখ বেঁধেছিল। পুলিশ এলাকার অনেক বাড়ির সিসিটিভি চেক করলেও স্কুটারটির নম্বর স্পষ্ট নয়।

14  ঘণ্টা পর লাশ উদ্ধারের খবর বেরিয়েছে
সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে 7 টার দিকে পরিবারের লোকজন চিঠিটি পড়ে শোনার সঙ্গে সঙ্গে রায়পুরা থানার পুলিশকে পুরো বিষয়টি জানায় পরিবার। সিসিটিভি ফুটেজ এবং অন্যান্য ইনপুটের ভিত্তিতে, পুলিশ অভিযান চালিয়ে বৃদ্ধ টিউশন শিক্ষিকা ও তার ভাইকে তুলে নিয়ে যায়।

টিউশন শিক্ষক তাকে অপহরণ করেছে বলে পুলিশের সন্দেহ। গভীর রাত পর্যন্ত দুজনকেই রায়পুরা থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। ঘটনার প্রায় 14 ঘণ্টা পর মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে শিশুটির লাশ উদ্ধারের খবর পাওয়া যায়।

ডিসিপি সেন্ট্রাল প্রমোদ কুমার সোমবার রাতে বলেছিলেন যে সন্দেহের ভিত্তিতে পুরানো টিউশন শিক্ষক এবং তার ভাইকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। শিশুটিকে উদ্ধারের জন্য সব ধরনের চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে পুলিশের এসব দাবি ব্যর্থ হয়েছে। পুলিশ ওই ছাত্রকে নিরাপদে উদ্ধার করতে পারেনি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর