প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||নতুন বাড়িতে গৃহপ্রবেশ করার দিন দুধ কেন ফুটানো উচিত? এর গুরুত্ব ও স্বীকৃতি জানুন||খরমাস 2024 তারিখ: মার্চ মাসে খরমাস কখন উদযাপিত হয়? এই দিন থেকে বিবাহ নিষিদ্ধ করা হবে||বাঁকে বিহারী মন্দিরে কেন প্রতি 2 মিনিটে পর্দা টানা হয়? জেনে নিন এর রহস্য||সংবিধান-গণতন্ত্র ও সত্যকে বাঁচাতে মিডিয়া ব্যর্থ, বলেছেন সাবেক সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি কুরিয়ান জোসেফ||WPL 2024: শোভনা আশা কে? ৫ উইকেট নিয়ে ইতিহাস গড়লেন||কল্যাণী AIIMS-এর উপর ₹15 কোটির জরিমানা, আগামীকাল উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী||পুলিশ সুপার সন্দেশখালিকে বলেন, “অভিযোগ করতে থানায় বা প্রশাসন ক্যাম্পে আসুন”||‘জমি নিলে ফেরত দাও’, সন্দেশখালিতে গিয়ে অভিষেকের বার্তা শোনালেন সেচমন্ত্রী||নাভালনির মৃতদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর, পুতিন সরকার নীরব||লখনউতে মুখ্যমন্ত্রী যোগীর কনভয়ের গাড়ির সঙ্গে বেশ কয়েকটি গাড়ির সংঘর্ষ, এক ডজন আহত

বিপত্তির মুখে বসুন্ধরা রাজে, বৈঠকের পর কী বললেন বিধায়ক?

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
বসুন্ধরা রাজে

রাজস্থানে বিজেপির বিশাল জয়ের পর মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন তা নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠেছে। নির্বাচনের আগে থেকেই বলা হচ্ছিল, দলীয় হাইকমান্ড মুখ্যমন্ত্রী পরিবর্তন করতে চায়। যদিও টিকিট বণ্টনে বসুন্ধরা রাজেরও বক্তব্য ছিল, কিন্তু ৭ জন সাংসদকে মাঠে নামানোর পর মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য নতুন প্রতিদ্বন্দ্বীও উঠে এসেছে। যাইহোক, রাজে পিছপা হওয়ার মুডে নেই বলে মনে হচ্ছে। সোমবার তার বাসভবনে হৈচৈ আরও তীব্র হয়। নির্বাচনে জেতার সঙ্গে সঙ্গে রাজে ‘নৈশভোজের রাজনীতি’ শুরু করেন।

ডিনারে আসেন বিজেপি বিধায়ক
তথ্য অনুযায়ী, আজ সন্ধ্যায় বসুন্ধরা রাজে বহু নবনির্বাচিত বিধায়ককে নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে এই নৈশভোজের রাজনীতিকে শক্তি প্রদর্শনের সঙ্গেও যুক্ত করা হচ্ছে। পিন্ডওয়ারার বিজেপি বিধায়ক সমরম গারাসিয়া বলেছেন- বসুন্ধরা রাজে তাঁকে ডিনারের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। তাই জয়পুরে এসেছেন তিনি। তবে, সন্ধ্যায় বিধায়ক কালীচরণ সরফ যখন তাঁর বাসভবন থেকে বেরিয়ে এসে সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে তিনি বলেছিলেন যে মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন তা দলের শীর্ষ নেতৃত্ব ঠিক করবে। বসুন্ধরা জি আমাদের সর্বজনস্বীকৃত নেত্রী, কিন্তু কে হবেন মুখ্যমন্ত্রী তা ঠিক করবে দল।

কালিচরণের প্রিয় কে? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন- দলে ব্যক্তিগত কোনো পছন্দ নেই। বিধানসভা দলের বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রীর নাম অনুমোদন করবে দলীয় নেতৃত্ব। বিশেষজ্ঞদের মতে, কালীচরণ সরফের বক্তব্য থেকে এটা স্পষ্ট যে বর্তমানে বসুন্ধরা রাজে এবং তাঁর সমর্থনে দাঁড়িয়ে থাকা বিধায়করা মুখ্যমন্ত্রীর পদ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী নন।দিনের বেলায় মুখ্যমন্ত্রী পদের প্রতিদ্বন্দ্বী বালকনাথকে দিল্লিতে ডাকা হয়েছিল। এতে মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে সংশয় আরও ঘনীভূত হয়েছে। বলা হচ্ছে প্রায় 30 জন বিধায়ক বসুন্ধরা রাজেকে মুখ্যমন্ত্রী করতে সমর্থন করছেন।

অনেক বিধায়ক এবং কর্মী তার সাথে দেখা করতে 13 সিভিল লাইনে বসুন্ধরা রাজের বাসভবনে পৌঁছেছেন। এর মধ্যে রয়েছেন বিধায়ক কালীচরণ সরফ, বাবু সিং রাঠোড়, প্রেমচাঁদ বৈরওয়া, প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি অশোক পার্নামি, সাঙ্গানের বিধায়ক ভজনলাল শর্মা, শাহপুরার বিধায়ক লালরাম বৈরওয়া, নাসিরাবাদের বিধায়ক রামস্বরূপ লাম্বা, মনোহরপুর থানার বিধায়ক গোবিন্দ রানীপুরিয়া, ললিত মীনা, কানওয়ারলাল মীনা এবং রাণীপুর বিধায়ক। কালুলাল মীনা। যুক্ত থাকুন। এছাড়াও, গুধা মালানির বিধায়ক কে কে বিষ্ণোই, পুষ্করের বিধায়ক সুরেশ রাওয়াত, বান্দিকুই বিধায়ক ভাগচাঁদ টাকরাকেও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে দেখা গিয়েছিল।

বসুন্ধরা রাজেকে মুখ্যমন্ত্রী করার দাবি
এভাবে নির্বাচনের ফল প্রকাশের ঠিক একদিন পরেই বসুন্ধরা রাজের বাসভবনে হৈচৈ আরও তীব্র হয়। বিধায়ক প্রতাপ সিং সিংভি এবং গোপীচাঁদ মীনাও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন। বসুন্ধরা রাজেকে মুখ্যমন্ত্রী করার প্রশ্নে বিধায়ক গোপীচাঁদ মীনা বলেন- আমাদের এবং জনসাধারণের অনুভূতি হচ্ছে বসুন্ধরা রাজেকে নেতৃত্ব দেওয়া উচিত। তার নেতৃত্বে মেওয়ার বিপুল জনসমর্থন পেয়েছে।

এদিকে রাজেকে মুখ্যমন্ত্রী করার দাবি জানিয়েছেন বিধায়ক বাহাদুর সিং কলি। তিনি বলেন, রাজস্থানের মানুষের দাবি বসুন্ধরা রাজেকে মুখ্যমন্ত্রী করা হোক। আমরা তাদের শক্তিশালী করতে এসেছি। বিধায়ক দলের বৈঠকেও আমরা আমাদের মতামত তুলে ধরব। অন্যদিকে, জাহাজপুরের বিজেপি বিধায়ক গোপীচাঁদ মীনা বলেছেন- আমরা বসুন্ধরা রাজেকে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দেখছি, সবাই এখানে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এসেছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর

ট্রেন্ডিং খবর