প্রভাত বাংলা

site logo
সমুদ্র মন্থন

সমুদ্র মন্থন থেকে ওঠা এই ৫ জিনিস ঘরে অবশ্যই রাখুন, উপচে পড়বে সুখ-সম্পদ

সমুদ্র মন্থন পুরাণের একটি অত্যন্ত পরিচিত গল্প। দেবতা ও দানবরা মিলে সমুদ্র মন্থন করে অমৃত তুলে এনেছিলেন। কিন্তু অমৃত ছাড়াও আরও অনেক কিছু উঠে এসেছিল সমুদ্র মন্থন করার ফলে। বিষ্ণ পুরাণ অনুসারে মহর্ষি দুর্বাশার অভিশাপে একদা স্বর্গের সম্পদ, গৌরব ও মহিমা নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। এই সংকট থেকে মুক্তি পেতে সব দেবতারা মিলে বিষ্ণুর কাছে যান। শ্রীবিষ্ণু তাঁদের সমুদ্র মন্থন করার পরামর্শ দেন।

একা সমুদ্র মন্থন করা সম্ভব নয় বলে এই কাজে অসুরদেরও সামিল করেন দেবতারা। সমুদ্র মন্থন করার ফলে ১৪টি দুর্মূল্য মণি উঠে আসে। এই ১৪টি মণিকে তাঁর বর্তমান রূপ অনুসারে ঘরে রাখা সম্ভব হলে সেই বাড়িতে সুখ, সম্পদ ও সমৃদ্ধি উপচে পড়ে বলে প্রচলিত বিশ্বাস। এমনই পাঁচটি রত্ন নিয়ে এখানে আলোচনা করা হল।

​ঐরাবত

সমুদ্র মন্থনের ফলে উঠে এসেছিল ঐরাবত নামক হাতি। সাদা রঙের এই হাতি হস্তীকুলের মধ্যে সেরা বলে মনে করা হয়। এই হাতির আকাশে ওড়ার ক্ষমতা রয়েছে বলে পুরাণে বর্ণনা করা হয়েছে। দেবরাজ ইন্দ্রকে ঐরাবতকে নিজের বাহন হিসেবে নির্বাচন করেন। বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে ঘরে সাদা পাথর বা ক্রিস্টালের তৈরি হাতির মূর্তি রাখা অত্যন্ত শুভ। এর ফলে সেই বাড়িতে সুখ ও সমৃদ্ধির কখনোও অভাব ঘটে না।

​পাঞ্চজন্য

সমুদ্র মন্থন করার ফলে অমৃত ছাড়া আর যা উঠেছিল তার মধ্যে অন্যতম পাঞ্চজন্য নামে একটি শঙ্খ। এই মহামূল্য শাঁখটি নারায়ণ তাঁর কাছে রাখেন। নারায়ণের ছবিতে সব সময় তাঁর হাতে এই শাঁখ দেখা যায়। বাড়িতে ঠাকুরের আসনে একটি শাঁখ অবশ্যই রাখুন। এই শাঁখ আপনার জন্য পাঞ্চজন্যর প্রতিনিধিত্ব করবে এবং আপনার বাড়িকে সুখ ও ঐশর্য্যে ভরিয়ে দেবে।

​উচ্চৈঃশ্রবা

সমুদ্র মন্থন করার ফলে পাওয়া গিয়েছিল উচ্চৈঃশ্রবা নামের একটি ঘোড়া। এই ঘোড়াটি সাদা রঙের এবং এটি পক্ষীরাজ ঘোড়া, অর্থাত্‍ আকাশে ওড়ার ক্ষমতা রয়েছে। এই ঘোড়াটি অসুরদের রাজা বালিকে প্রদান করা হয়েছিল। মনে করা হয় ঘরে একটি সাদা রঙের ঘোড়ার ছবি বা মূর্তি রাখলে বাস্তু অনুযায়ী তা আপনার ঘরের যাবতীয় নেগেটিভ এনার্জিকে সরিয়ে দেবে। পজিটিভ এনার্জিতে ভরে উঠবে আপনার ঘর।

​পারিজাত

হিন্দুধর্ম অনুসারে পারিজাত ফুল অত্যন্ত মাহাত্ম্যপূর্ণ। একে স্বর্গের ফুল বলা হয়ে থাকে। অনিন্দ্যসুন্দর এই ফুলের গন্ধও অত্যন্ত সুন্দর। সমুদ্রমন্থনের ফলেই উঠে এসেছিল পারিজাত ফুল। ঘরে পারিজাত ফুল রাখতে পারলে তা অত্যন্ত শুভ ফল প্রদান করে। ঠাকুরের আসনের সামনে একটি পারিজাত ফুল রাখুন। এর সুগন্ধ আপনার ঘরকে নেগেটিভ এনার্জি থেকে রক্ষা করবে এবং এর ফলে সাফল্য ও সমৃদ্ধির জোয়ার বইবে।

​অমৃত কলস

সমুদ্র মন্থন করার ফলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যেটি উঠে আসে, তা নিঃসন্দেহে অমৃত কলস। দেবী মহালক্ষ্মী স্বয়ং অমৃত কলসের ভাণ্ড হাতে উঠে আসেন। এই কলসের অধিকার নিয়ে দেবতা ও অসুরদের মধ্যে লড়াই বাধে। অমৃত কলসের ফলেই অমরত্ব লাভ করেন দেবতারা। সেই কারণে কলস স্থাপন করা হিন্দু ধর্মে অত্যন্ত শুভ বলে মনে করা হয়। যে কোনও শুভ কাজে কলস স্থাপন করলে কোনও সমস্যা ও সংকট কাছে আসতে পারে না বলে প্রচলিত বিশ্বাস।

Read More : 2023 সালে কি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হবে? জেনে নিন কী ভবিষ্যদ্বাণী নস্ট্রাডামাসের

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *