প্রভাত বাংলা

site logo
হাইকোর্ট

সরকারি সম্পত্তি ধ্বংস করার জন্য বিজেপির বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা খারিজ করল হাইকোর্ট

কলকাতা হাইকোর্ট বিজেপির নবান্ন অভিযান কর্মসূচি এবং ক্ষতির বিরুদ্ধে দায়ের করা জনস্বার্থ মামলা খারিজ করে দিয়েছে। আইনজীবী রমাপ্রসাদ সরকার তার হলফনামায় দাবি করেছেন যে এই কর্মসূচির ফলে সাধারণ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। অনেক সরকারি সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ অভিযোগের পাশাপাশি ক্ষতিপূরণেরও আবেদন জানান তিনি। প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ শুক্রবার এই রায় ঘোষণা করেন এবং আবেদনটি খারিজ করে দেন।

উল্লেখ্য যে এই মামলাটি 13 সেপ্টেম্বর বিজেপির নভন্ন প্রচারের দিন দায়ের করা হয়েছিল। হাইকোর্টে একটি জরুরি শুনানির আবেদন করা হয়েছিল নাভান্না প্রচার বাতিল করার জন্য। আইনজীবী রমাপ্রসাদ আদালতের সামনে তার হলফনামায় বলেছিলেন যে সুপ্রিম কোর্ট জাতীয় সড়ক অবরোধ করে জনজীবন বিপন্ন করে সভা, মিছিল এবং সমিতি নিষিদ্ধ করেছে। এরপরও কেন এই অভিযান চালানো হবে এমন প্রশ্ন তুলে তিনি আদালতের হস্তক্ষেপ চান।

অন্যদিকে, বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের নবান্ন প্রচারকে ঘিরে সকাল থেকেই বিশৃঙ্খলা। দ্বিতীয় হুগলি সেতু সহ হাওড়া ও কলকাতার বিভিন্ন রাস্তায় যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

Read more : ‘আন্দোলনের পিছনে তৃণমূল’, কুর্মি আন্দোলন নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য দিলীপের

এরপরই সাঁতরাগাছিতে পুলিশ ও বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে। জবাবে পুলিশ জলকামান ও কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। সমাবেশে যোগ দেওয়ার আগেই গ্রেফতার করা হয় বিজেপি বিধায়ক ও রাজ্যের বিরোধী নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে। পুলিশের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত তৎপরতার অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত এবং কলকাতা পুরসভার কাউন্সিলর মীনাদেবী পুরোহিতকে মারধর করা হয়। বাদী নাভান্না অভিযানের পর ক্ষয়ক্ষতির জন্য ক্ষতিপূরণ চান। হাইকোর্ট মামলাটি খারিজ করে দেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.