প্রভাত বাংলা

site logo
শোভনদেব

এবার দুর্নীতিতে নিয়ে ফের বিস্ফোরক শোভনদেব চ্যাটার্জি

তৃণমূল বিধায়ক এবং খড়দহ রাজ্যের মন্ত্রী শোভানদেব চ্যাটার্জি আজ খড়দহ বিধানসভার বিলকান্দায় একটি দলীয় অনুষ্ঠানে আবারও দুর্নীতিতে (স্ক্যাম) জড়িত। অন্যথায় দল কাউকে মেনে নেবে না। চোর তো চোর। প্রমাণিত হলে দল তাকে সহ্য করবে না। সে যেই হোক, তাই সবাই বলে খারাপ, এটা হতে পারে না।

প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই রাজ্যে একাধিক দুর্নীতির মামলায় শাসক দলের হেভিওয়েট নেতা ও মন্ত্রীদের নাম জড়িয়েছে। গরু পাচারের মামলায় গ্রেফতার হলেন অনুব্রত মণ্ডল। একই মামলায় নিকটাত্মীয়দেরও হেফাজতে নিয়েছে সিবিআই। এদিকে, এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর ঘনিষ্ঠ সহযোগী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে। দুজনই এখন কারাগারে। এ ছাড়া আরও কয়েকটি মামলায় অনুব্রত-পার্থের নাম জড়িয়েছে। ইতিমধ্যে কল্যাণময়, শান্তিপ্রসাদ, সুবীরেশকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যার কারণে রাষ্ট্রের শিক্ষা ব্যবস্থার পাশাপাশি উপাচার্য পদের অসম্মান হওয়ার পাশাপাশি বিস্ফোরক রায় খোদ।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি এসএসসি দুর্নীতি ইস্যুতে গ্রেফতার হয়েছেন এসএসসির প্রাক্তন চেয়ারম্যান সুবীরেশ ভট্টাচার্য। এক সময় তিনি শ্যামাপ্রসাদ কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন। তিনি তৃণমূল জামানায় অধ্যক্ষ-উপাচার্য সংস্থার শীর্ষ পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। বর্তমানে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় ও দার্জিলিং হিলস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। গত মাসে শিলিগুড়িতে এসএসসি-র প্রাক্তন চেয়ারম্যানের বাড়িতেও গিয়েছিলেন সিবিআই। SSC-এর প্রাক্তন চেয়ারম্যান এবং উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুবীরেশ ভট্টাচার্যের বাড়িতে 10-সদস্যের CBI প্রতিনিধি দল হানা দিয়েছে। এ সময় জানা যায়, বাগ কমিটির প্রতিবেদনে এসএসসির সাবেক চেয়ারম্যানের নাম ছিল। তবে এখানেই শেষ নয়, এর সঙ্গে জড়িত রয়েছে ক্ষমতাসীন দলের আরও অনেকের নাম। আর এবার এই পরিস্থিতিতে দুর্নীতি নিয়ে মুখ খুললেন রাজ্যের মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়।

Read more : এবার বিজেপির ‘চমক’ সুকান্তের ছাত্রী, উত্তরবঙ্গের দলের দুর্গাপূজা করবেন সুলতা

তৃণমূলের অধ্যাপক-সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘আমি খুবই লজ্জিত। একজন ভাইস চ্যান্সেলর জেলে যাচ্ছেন। আমি জানি না সুবীরেশ কীভাবে উপাচার্য হলেন। এক সময় তিনি শ্যামাপ্রসাদ কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন। তিনি তৃণমূল জামানায় অধ্যক্ষ-উপাচার্য সংস্থার শীর্ষ পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। বর্তমানে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় ও দার্জিলিং হিলস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। সৌগত রায়কে অনেক গুরুত্ব দিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি বলেন, ‘একই মানুষ, তার কী বড় গুণ, সে এসএসসির চেয়ারম্যান, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, শ্যামাপ্রসাদ কলেজের অধ্যক্ষের পদ ছাড়েনি, এসব কেন কেউ দেখেনি, আমি জানি না। তার গ্রেফতারের কারণে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।আর উপাচার্য পদের গৌরব ও মর্যাদা অনেকটাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।দলের প্রতি আনুগত্য ছিল বলে আমার জানা নেই।’

Leave a Comment

Your email address will not be published.