প্রভাত বাংলা

site logo
শাসন

‘২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হবে?

পশ্চিমবঙ্গে কি রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার প্রস্তুতি চলছে? আসলে এমনই দাবি করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের এক প্রবীণ নেতা। বাংলায় ক্ষমতাসীন দল টিএমসির নেতার তরফে বলা হয়েছে যে কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে। ইকোনমিক টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই দাবি করেছেন রাজ্যসভার সাংসদ ও টিএমসির জাতীয় মুখপাত্র সুখেন্দু শেখর রায়। তিনি বলেছেন যে বিজেপি এই উদ্দেশ্যকে সফল করতে সর্বাত্মক কৌশল তৈরি করেছে।

রাজ্যপাল “কেন্দ্র ও বিজেপি দলের এজেন্ট”
সাক্ষাৎকারে টিএমসি সাংসদ অনেক বিষয়ে কথা বলেছেন। তাঁর মতে, বিজেপি উত্তরবঙ্গকে রাজ্যের বাকি অংশ থেকে আলাদা করার চেষ্টা করছে। বিজেপি প্রায়ই পশ্চিমবঙ্গের আইন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করার পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যায়, সিবিআই এবং অন্যান্য সংস্থাগুলিকে ব্যবহার করে, সেইসাথে রাজ্যপালকে “কেন্দ্র ও বিজেপি দলের এজেন্ট” হিসাবে ব্যবহার করে।

বঙ্গভঙ্গের প্রস্তুতি
এখানেই থেমে থাকেননি তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়। কেন্দ্রের মোদী সরকার দেশকে ভিতর থেকে ভাগ করে উত্তরবঙ্গকে রাজ্যের বাকি অংশ থেকে বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টা করছে। কারণ তারা জানে তারা তা না করে জিততে পারবে না। তা না হলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উপস্থিতিতে দলীয় বিধায়করা মঞ্চ থেকে আলাদা উত্তরবঙ্গের প্রসঙ্গ তুলবেন কী করে?

Read More :

আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে, কেন?
TMC সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় আরও বলেছেন যে আপনি প্রায়শই দেখেছেন যে বাংলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে ক্রমাগত প্রশ্ন উঠছে। এটি তার পরিকল্পনার দ্বিতীয় অংশ। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিনিয়ত উদ্বেগ প্রকাশ করতে দেখা যায় এসব লোকজনকে। সম্প্রতি বিজেপি যুব শাখার নেতা অর্জুন চৌরাসিয়ার মৃত্যুর পর ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। কিন্তু কেন এমন? ভোট-পরবর্তী সহিংসতার বিষয়টি বারবার উত্থাপন কী নির্দেশ করে? রামপুরহাট সহিংসতা, হাস্যোজ্জ্বল গণধর্ষণ এবং দায়ের করা বগতুই গ্রামে অন্যান্য ঘটনায় জনস্বার্থ মামলা দায়ের করার কাজটি করেছে বিজেপি। রায়ের তরফে দাবি করা হয়, এই সমস্ত ঘটনায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন বাংলা সরকার দ্রুত ব্যবস্থা নিয়ে ন্যায়বিচার দেওয়ার কাজ করেছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *