প্রভাত বাংলা

site logo
শাহিনবাগে

দিল্লির শাহিনবাগে হাই ভোল্টেজ নাটকের পরে, MCD-এর কর্মীরা অপসারণ না করেই ফিরেছে

দক্ষিণ দিল্লি মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশন (SDMC) এর একটি দল আজ একটি বুলডোজার নিয়ে শাহিনবাগের দখল অপসারণ করতে পৌঁছেছিল, যেখানে নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) প্রতিবাদ করা হয়েছিল, কিন্তু স্থানীয় লোকেরা তীব্রভাবে এর বিরোধিতা করেছিল। এখন উচ্ছেদ অভিযান বন্ধ করে বুলডোজার ফেরত পাঠানো হয়েছে। এদিকে স্থানীয় লোকজন নিজেরাই অস্থায়ী স্থাপনা সরিয়ে নিয়েছে। আম আদমি পার্টির (এএপি) স্থানীয় বিধায়ক আমানতুল্লাহ খান, মার্কেট অ্যাসোসিয়েশনের সাথে সমন্বয় করে কাঠামোগুলি সরিয়ে নিয়েছিলেন।

হাইভোল্টেজ নাটকের মধ্যে রাজনৈতিক দলের লোকজনও সেখানে ভিড় জমায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে সেখানে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এর আগে পুলিশের কর্মকর্তারা স্থানীয় দোকানদারদের সঙ্গে কথা বললে দখল উচ্ছেদের অভিযান বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এর আগে, দখল সরাতে আসা এমসিডি কর্মচারীদের হাতে একটি লাল ফিতা বাঁধা ছিল, যাতে তাদের সহজেই চিহ্নিত করা যায়। এই অনুষ্ঠানে কংগ্রেস কর্মীরাও দখল উচ্ছেদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানান। যদিও বিক্ষোভরত কংগ্রেস কর্মীদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয় পুলিশ। মহিলা সহ স্থানীয় বিপুল সংখ্যক লোকও এমসিডির পদক্ষেপের বিরোধিতা করেছিল এবং লোকেরা বুলডোজারের সামনে বসেছিল।

আম আদমি পার্টির বিধায়ক আমানতুল্লাহ খানও দলীয় বাহিনী নিয়ে সেখানে পৌঁছেছিলেন দখল অপসারণের পদক্ষেপের প্রতিবাদ করতে। এরা ছাড়াও কংগ্রেস ও আম আদমি পার্টির বহু কর্মীও সেখানে জড়ো হয়েছিলেন। আমানতুল্লাহ খান অভিযোগ করেন, বিজেপি দখলমুক্ত করার অজুহাতে রাজনীতি করছে। তিনি বলেন, শাহীনবাগের কোথাও কোনো অবৈধ দখল নেই। তিনি বলেন, যা কিছু বেআইনি নির্মাণ ছিল, তিনি নিজেই তা সরিয়ে দিয়েছেন।

Read More :

কয়েক দিন আগে, দক্ষিণ কর্পোরেশনের স্থায়ী কমিটির ডেপুটি চেয়ারম্যান রাজপাল সিং বলেছিলেন যে এসডিএমসি 4 মে থেকে 13 মে পর্যন্ত দক্ষিণ দিল্লির অনেক জায়গায় অবৈধ নির্মাণ ভেঙে ফেলার অভিযান শুরু করবে। এ ব্যাপারে এসডিএমসি দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব ডিসিপিকে চিঠি দিয়েছে।

জানিয়ে রাখি, জাহাঙ্গীর পুরিতে বুলডোজার অভিযানের পর দিল্লির পৌর কর্পোরেশনের মেয়র ও আধিকারিকরা অনেক এলাকায় অবৈধ দখল উচ্ছেদের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আজ, বুলডোজার আসার মধ্যে সকাল থেকেই শাহীনবাগ এলাকায় দোকানিরা তাদের মালামাল সরাতে শুরু করে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *