প্রভাত বাংলা

site logo
জীবন

আজকের জীবন মন্ত্রঃ পরিবারে সুখ-শান্তি চাইলে গুরুজন ও পণ্ডিতদের আশীর্বাদ নিতে হবে

আজকের জীবন মন্ত্রঃ মহাভারতে অর্জুন ও গন্ধর্বরাজ চিত্ররথের যুদ্ধ হয়েছিল। অর্জুন যুদ্ধে জয়ী হয়েছিলেন। পরে অর্জুন চিত্ররথকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘আপনি আমাদের কীভাবে হারিয়েছেন?’

চিত্ররথ বলল, ‘তোমার পরিবার পুরোহিতের আশীর্বাদ।’

দুজনের মধ্যে কথোপকথন চলছিল, এমন সময় গন্ধর্বরাজ অর্জুনকে তপতী নন্দন ডাকলেন। অর্জুন জিজ্ঞেস করল, ‘তুমি আমাকে তপতী নন্দন বলে ডাকছ কেন?’

গন্ধর্বরাজ বললেন, ‘সূর্যদেবের তপ্তি নামে একটি কন্যা ছিল। তোমার বংশে সম্বরণ নামে এক রাজা ছিলেন। একবার সানবরণ তপ্তিকে দেখেছিলেন, তিনি তপ্তিকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু তিনি ছিলেন সূর্যদেবের কন্যা। সূর্যদেবকে তার বক্তব্য জানাতে, সম্ভারন তার গুরু বশিষ্ঠ জিকে পুরো বিষয়টি জানান। বশিষ্ঠ সূর্যদেবের সঙ্গে কথা বললেন। এর পর সম্বরণ ও তৃপ্তির বিয়ে হয়।

গন্ধর্বরাজ আরও বলেন, ‘সেদিন সবাই জানতে পারলেন যে যে রাজবংশের গুরু, পুরোহিত ও ব্রাহ্মণদের আশীর্বাদ আছে, যে বংশের পণ্ডিতদের সম্মান করে, সেই রাজবংশের সমস্ত বন্ধ কাজ সম্পন্ন হয়। আপনার পৈত্রিক পুরুষের বর্ণনার জন্য বশিষ্ঠজি সূর্যদেবের সাথে কথা বলেছিলেন। তুমি আমার সাথে যুদ্ধে জয়ী হয়েছ কারণ তোমার সাথে তার আশীর্বাদ রয়েছে।

Read More :

পাঠ
গন্ধর্বরাজ চিত্ররথ অর্জুনকে যেসব কথা বলেছেন, তার মধ্যে এটাই আমাদের জন্য বার্তা যে, যাঁদের গুরু, পণ্ডিত, ঋষি ও বয়োজ্যেষ্ঠদের আশীর্বাদ আছে, তাঁদের সমস্ত কাজ সম্পন্ন হয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *