প্রভাত বাংলা

site logo
কাশীপুর

অর্জুনের দেহ উদ্ধার নিয়ে রণক্ষেত্র কাশীপুর

মৃতদেহ শনাক্ত করার পাঁচ ঘণ্টা পর পুলিশ বিজেপি যুব মোর্চা কর্মী অর্জুন চৌরাসিয়ার মৃতদেহ উদ্ধার করে আরজিকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। অর্জুনের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এদিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন কাশীপুর -বেলগাছিয়ার তৃণমূল বিধায়ক অতীন ঘোষ। তাকে নিয়ে ঘটনাস্থলে আসেন স্থানীয় কাউন্সিলর সুমন সিং। এতে পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। দুই পক্ষের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। পুলিশ নরম লাঠিসোঁটা দিয়ে জনতাকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।অর্জুনের মৃত্যুর খবর পেয়ে বিজেপি নেতা-কর্মীদের কাশীপুরে আসার আহ্বান জানান উত্তর কলকাতা জেলা বিজেপির সভাপতি কল্যাণ চৌবে। সেই মতো ঘটনাস্থলে আসতেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। সেই সময় স্থানীয় কাউন্সিলরের সঙ্গে ঘটনাস্থলে আসেন স্থানীয় বিধায়ক ও ডেপুটি মেয়র অতীন। এতে পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। অতীনকে ঘিরে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান দেন বিজেপি কর্মীরা। বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন তৃণমূল কর্মীরা। পুলিশ দুই পক্ষের মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে।

Read more :

বিজেপির দাবি, অমিত শাহ না আসা পর্যন্ত পুলিশকে অর্জুনের দেহ স্পর্শ করতে দেওয়া হবে না। তৃণমূল পাল্টা বিজেপি কর্মী সমর্থকদের সরানোর চেষ্টা করছে। এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। যে বাড়িতে অর্জুনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়, সেই বাড়ির দরজায় কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন কল্যাণ।পুলিশ উভয় পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করছে। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে দেখা যায়। বিক্ষুব্ধ মরদেহ দুটি সরানোর পর ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে আরজিকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ততক্ষণে ৫ ঘণ্টা পার হয়ে গেছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *