প্রভাত বাংলা

site logo
Breaking News
||পুতিনের বক্তৃতা লেখককে মোস্ট ওয়ান্টেড ঘোষণা||‘মিথ্যা বলা রাহুল গান্ধীর স্বভাব হয়ে গেছে’, কংগ্রেসকে নিশানা বিজেপির||Akhilesh Yadav : ‘কংগ্রেসের উচিত আঞ্চলিক দলগুলিকে এগিয়ে রাখা’, বিজেপিকে হারানোর ফর্মুলা দিলেন অখিলেশ!||26 মার্চ 2023 রাশিফল: আজ নিজেই জেনে নিন আপনার দিনটি কেমন যাবে||Amritpal Singh : যুবকদের টাইগার ফোর্স বানাচ্ছিল পলাতক অমৃতপাল, ডলারের নকল করে ছাপা হয়েছিল খালিস্তানি নোট||Rahul Gandhi : সহানুভূতি VS জাতপাতের রাজনীতি, রাহুল গান্ধীর রায় নির্বাচনে ‘দ্বিধারী তলোয়ার’ হতে পারে?||জনপ্রতিনিধিত্ব আইনের ধারা 8(3) চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে, আবেদনে বলা হয়- এটা গণতন্ত্রবিরোধী||Karnataka Election 2023: কর্ণাটকে 124 জন প্রার্থীর তালিকা প্রকাশ করেছে কংগ্রেস||রামনবমীতে অস্ত্রমিছিলের প্রস্তুতি করছে বিজেপি||অনশন প্রত্যাহার সরকারি কর্মীদের, দাবিতে অনড় সরকারি কর্মচারীরা

ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার বড় অভিযোগ, বলল- চেরনোবিলে পারমাণবিক বোমা বানাচ্ছিল কিইভ

Facebook
Twitter
WhatsApp
Telegram
চেরনোবিলে

নতুন দিল্লি. 24 ফেব্রুয়ারি, রাশিয়া ইউক্রেনের উপর রাশিয়ান আক্রমণ শুরু করে। তারপর থেকে 11 দিন হয়ে গেছে। ইউক্রেনের সর্বত্র আতঙ্ক, শোক ও নীরবতা বিরাজ করছে, কিন্তু এখন পর্যন্ত ইউক্রেন রাশিয়ার মতো বড় দেশের বিরুদ্ধে লড়াই ছাড়েনি। এবার ইউক্রেনের বিরুদ্ধে বড় ধরনের অভিযোগ তুলেছে রাশিয়া। রুশ মিডিয়ার মতে, ইউক্রেন চেরনোবিলে প্লুটোনিয়াম-ভিত্তিক নোংরা বোমা তৈরির কাছাকাছি ছিল। এটি এক ধরনের পারমাণবিক বোমা। তবে রাশিয়ার গণমাধ্যমে এ বিষয়ে কোনো প্রমাণ দেওয়া হয়নি। চেরনোবিল পারমাণবিক কেন্দ্রে সবচেয়ে খারাপ পারমাণবিক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এরপর 2000 সালে কারখানাটি বন্ধ হয়ে যায়।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন 24 ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলার নির্দেশ দেন। পুতিনের মতে, ইউক্রেনকে নিরস্ত্রীকরণ এবং নাৎসিবাদ এবং পশ্চিমাকরণ থেকে মুক্ত করতে এবং ন্যাটোতে প্রবেশ না করার জন্য এই হামলা চালানো হয়েছিল। তবে পশ্চিমা দেশগুলো বরাবরই পুতিনের এসব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আসছে।

রাশিয়ান মিডিয়ার খবর
রাশিয়ান মিডিয়া তাস, আরআইএ এবং ইন্টারফেস নিউজ এজেন্সি একটি দক্ষ রাশিয়ান সংস্থার প্রতিনিধির বরাত দিয়ে এই খবর দিয়েছে। এই সংবাদ সংস্থাগুলো রাশিয়ান সরকারের সমর্থক। রুশ প্রতিনিধি বলেছেন যে ইউক্রেন চেরনোবিলে যেখানে চেরনোবিল পাওয়ার প্লান্ট ছিল একই জায়গায় পারমাণবিক বোমা তৈরি করছে। এই পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি 2000 সাল থেকে বন্ধ থাকলেও এখানে পারমাণবিক বোমা তৈরির প্রক্রিয়া চলছিল।

Read More :

ইউক্রেনের অস্বীকৃতি
যাইহোক, ইউক্রেনীয় সরকার বলেছে যে তারা 1994 সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের বিলুপ্তির পরে পারমাণবিক ক্লাবে যোগদানের তার অভিপ্রায় ছেড়ে দিয়েছিল এবং তাদের পারমাণবিক বোমা তৈরির কোন ইচ্ছা ছিল না। এ ক্ষেত্রে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনও হামলার ঠিক আগে বলেছিলেন যে ইউক্রেন সোভিয়েত প্রযুক্তি ব্যবহার করে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরিতে নিয়োজিত ছিল। এটা রাশিয়ার ওপর হামলার প্রস্তুতির মতো। সোভিয়েত ইউনিয়নের সময় ইউক্রেনের কাছে বেশ কিছু পারমাণবিক বোমা ছিল। 1994 সালে এটি রাশিয়ার কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হলেও রাশিয়া অভিযোগ করে যে ইউক্রেন একই প্রযুক্তির ভিত্তিতে পরমাণু তৈরি করছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর