প্রভাত বাংলা

site logo
বার্তা

রুশ সৈন্যের শেষ বার্তা, ‘মা, আমরাও বেসামরিক লোকদের ওপর বোমা বর্ষণ করছি..’

সারা বিশ্ব বর্তমানে ইউক্রেনে রুশ সেনাবাহিনীর দ্বারা সৃষ্ট ধ্বংসযজ্ঞ দেখছে এবং শুনছে, কিন্তু ইউক্রেন পিছপা হতে প্রস্তুত নয়। এদিকে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ নিয়ে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে জরুরি অধিবেশনও ডাকা হয়েছে। একই অধিবেশনে, জাতিসংঘে ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত ইউক্রেনের একটি ঘটনার উল্লেখ করে একজন রাশিয়ান সৈন্যের একটি বার্তা পড়েন, যেখানে দাবি করা হয়েছিল যে রাশিয়ান বাহিনী এখন ইউক্রেনীয়দেরও আক্রমণ করছে।

আসলে এই যুদ্ধ থামাতে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের জরুরি অধিবেশন ডাকা হয়েছিল। অধিবেশনে ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধ বন্ধে রাশিয়ার প্রস্তাবকে সমর্থন করেছেন অনেক দেশের রাষ্ট্রদূত। এই অধিবেশনে ভাষণ দিতে গিয়ে, জাতিসংঘে ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত, সের্গেই কিসলিতস্যা বলেছেন যে একজন রাশিয়ান সৈন্য তার মাকে ফোনে তার শেষ বার্তায় যে বার্তা পাঠিয়েছিলেন। এরপর যুদ্ধে রুশ সৈন্য মারা যায়।

রাষ্ট্রদূতের মতে, তিনি লিখেছেন, ‘মা, আমি ইউক্রেনে আছি, এখানে একটি সত্যিকারের যুদ্ধ চলছে এবং আমি ভয় পাচ্ছি। আমরা একযোগে সব শহরে বোমাবর্ষণ করছি। এমনকি বেসামরিক নাগরিকদেরও টার্গেট করা হচ্ছে। তিনি এই বার্তাটি লিখেছিলেন যখন প্রথম রাশিয়ান সৈনিকের মা তার ছেলেকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন কেন শেষটির উত্তর দিতে তার এত সময় লেগেছিল এবং তিনি তাকে একটি পার্সেল পাঠাতে পারেন কিনা। কিন্তু সে এভাবে উত্তর দেয়।

শুধু তাই নয়, সৈনিক আরও লিখেছেন যে আমাদের বলা হয়েছিল যে ইউক্রেনীয়রা আমাদের স্বাগত জানাবে কিন্তু তারা আমাদের সাঁজোয়া যানের নীচে পড়ে, চাকার নীচে নিজেদের ছুঁড়ে ফেলে এবং আমাদের যেতে দিচ্ছে না। তারা আমাদের ফ্যাসিস্ট বলে। মা, এটা খুব কঠিন। এই বার্তাটি পড়ে ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত বৈঠকে বলেছিলেন যে আপনি এই ট্র্যাজেডিটি কল্পনা করুন, 24 ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এটি কত বড়। তিনি আরও বলেন, ভাবুন তো আপনার সামনে এমনটা হচ্ছে কিনা।

সাধারণ পরিষদে ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত সের্গেইও বলেছেন, বিশ্ব নিরাপত্তার হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে সাধারণ পরিষদকে এই জরুরি অধিবেশন ডাকতে হয়েছে। সের্গেই বলেছেন যে সাধারণ পরিষদের উচিত রাশিয়ার আগ্রাসন বন্ধের দাবিতে স্পষ্টভাবে আওয়াজ তোলা। তিনি বলেন, রাশিয়ার উচিত অবিলম্বে কোনো শর্ত ছাড়াই ইউক্রেনের ভূখণ্ড থেকে সেনা প্রত্যাহার করা।

Read More :

অন্যদিকে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি রুশ সৈন্যদের ইউক্রেন ছেড়ে জীবন বাঁচানোর আহ্বান জানিয়েছেন। ইউক্রেন ক্রমাগত বিশ্বের কাছে তুলে ধরছে ইউক্রেনে রুশ সেনারা যে শোষণ করছে। এই যুদ্ধে এ পর্যন্ত সাড়ে চার হাজারের বেশি রুশ সেনা নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেন। ইউক্রেনের সঙ্গে আলোচনার মধ্যে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তিন স্তরের পারমাণবিক বাহিনীকে ‘হাই অ্যালার্ট’ জারি করেছেন। এতে পারমাণবিক যুদ্ধের ঝুঁকি বেড়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *