প্রভাত বাংলা

site logo
ইউক্রেন

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ: ‘আমি ভেবেছিলাম, মোদি বা যোগী সরকার আমাদের উদ্ধার করবে, এখন মনে হচ্ছে না’

বিশ্ববাসীর দৃষ্টি বর্তমানে ইউক্রেনে চলমান যুদ্ধের দিকে স্থির। ইউপির হাজার হাজার পরিবারও মুহূর্তের মধ্যে ইউক্রেনের ঘটনার দিকে নজর রাখছে। কারণ এই পরিবারের সদস্যরা হাজার হাজার ভারতীয়ের মতো ইউক্রেনে আটকা পড়েছেন। লখনউয়ের বাসিন্দা গরিমা মিশ্রের সামনে যে ভিডিওটি প্রকাশিত হয়েছে তা দেখে অন্য ছাত্রদের পরিবারও বিরক্ত। এই ধরনের সমস্যাগ্রস্ত পরিবার এবং তাদের প্রিয়জনকে ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করার জন্য লখনউয়ের শাস্ত্রী ভবনে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ স্থাপন করা হয়েছে। ত্রাণ কমিশনারের কার্যালয়ে এই কন্ট্রোল রুম 24 ঘণ্টা কাজ করছে।

গরিমা মিশ্রের ভিডিও সামনে আসার পর কন্ট্রোল রুম তার সঙ্গে কথা বলে। পুরো ঘটনা শোনার পর তিনি তাদের নিরাপদে বাড়ি ফেরার আশ্বাস দিয়েছেন। আধিকারিকদের দাবি যে তাদের সম্পূর্ণ তথ্য ভারত সরকারের বিদেশ মন্ত্রক এবং ইউক্রেনে ভারতীয় দূতাবাসকে দেওয়া হয়েছে। শীঘ্রই গরিমাও নিরাপদে বাড়ি ফিরবেন।

ইউপি থেকে 1,242 এবং লখনউ থেকে 66 জন এখনও ইউক্রেনে আটকে রয়েছেন

ইউপি সরকারের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ইউক্রেনে আটকা পড়েছেন ইউপির 1 হাজার 242 জন। এর মধ্যে লখনউয়ের 66 জন, বিজনরের 59 জন, গাজিয়াবাদের 48 জন এবং গোরখপুরের 46 জন এখনও সাহায্যের জন্য অপেক্ষা করছেন। ইউক্রেনের পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হওয়ায় শিক্ষার্থীরা তাদের স্বদেশে ফিরে যাওয়ার জন্য ক্রমাগত আবেদন করছে। লখনউতে তৈরি কন্ট্রোল রুম তাদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছে। ইউক্রেনে আটকে পড়া শিশুদের তথ্যও তাদের পরিবারকে দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও, সমস্ত তথ্য বিদেশ মন্ত্রককে দেওয়া হচ্ছে।

নিরাপদ ইউপি ফেরত 85 জন

কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত ইউক্রেনে আটকে পড়া 85 জন নিরাপদে দেশে ফিরেছেন। এদের অধিকাংশই মেডিকেলের ছাত্র। ইউপি থেকে বিপুল সংখ্যক শিশু ডাক্তারি পড়তে ইউক্রেনে যায়। এখন সেখানে বিপুল সংখ্যক শিশু আটকা পড়েছে। ভারত সরকার তাদের শীঘ্রই নিরাপদে ফিরিয়ে আনার দাবি করছে। কিন্তু সেখানকার পরিবর্তিত পরিস্থিতি সমস্যা বাড়িয়ে দিয়েছে।

ইউপিতে কন্ট্রোল রুম কিভাবে কাজ করছে?

ইউক্রেনে আটকে পড়া উত্তরপ্রদেশের মানুষদের নিরাপদে ফেরাতে লখনউয়ের ত্রাণ কমিশনারের অফিসে রাজ্য দুর্যোগ নিয়ন্ত্রণ কক্ষ চালানো হচ্ছে। এটি 8 থেকে 10 জন লোক ধারণ করে। তারা সবাই ফোন ও ই-মেইলে তথ্য পেয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এর ভিত্তিতে তালিকা তৈরি করা হয়।

উত্তরপ্রদেশের ছাত্রদের সম্পর্কিত তথ্য ভারত সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ইউপিতে ওই ছাত্রদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানানো হচ্ছে। পাশাপাশি সেখানে আটকে পড়া শিশুদের সঙ্গে কথা বলে নিরাপদে ফেরার আশ্বাসও দিচ্ছেন এখানকার কর্মীরা।

Read More :

ইউক্রেনে আটকে পড়া শিক্ষার্থীরা ভারত সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করছে

রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে চলমান যুদ্ধের মধ্যে ইউক্রেনে ইউপির হাজার হাজার শিক্ষার্থী আটকা পড়েছে। এ কারণে পরিবার উদ্বিগ্ন। তারা এখন কেন্দ্রীয় সরকারের গাফিলতির অভিযোগ করছেন। এখন ইউক্রেনে আটকে পড়া শিশুদের ভিডিওও প্রকাশ পেতে শুরু করেছে। ভিডিওতে তারা ভারত সরকার ও দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সাহায্য না করার অভিযোগ করছেন। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি এখন তাদের পরিবারের সদস্যরাও সমস্যায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ করছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *