প্রভাত বাংলা

site logo
ন্যাটো

রাশিয়ার সাথে যুদ্ধে নেমেছে ন্যাটো , ইউক্রেনকে ক্ষেপণাস্ত্র ও ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী অস্ত্র দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে

ন্যাটো এখন আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়া ও ইউক্রেনের যুদ্ধে একটি পক্ষ হয়ে উঠেছে। ন্যাটো সংস্থা বলেছে যে তারা ইউক্রেনকে বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র এবং ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী অস্ত্র দেবে। ন্যাটো প্রধান জেনস স্টলটেনবার্গ এক টুইট বার্তায় এই জ্যাম জানিয়েছেন। তিনি বলেন, আমরা এ বিষয়ে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা শীঘ্রই ইউক্রেনকে বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র এবং ট্যাঙ্ক-বিরোধী অস্ত্র সরবরাহ করব।

এরই মধ্যে অন্যান্য দেশের নেতাদের সঙ্গেও কথা বলেছেন ন্যাটো প্রধান। অন্য একটি টুইটে তিনি বলেছেন যে তিনি লিথুয়ানিয়ার প্রেসিডেন্টের সাথে কথা বলেছেন, যেখানে রাশিয়ার হামলার পর উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে কথা হয়েছে। তিনি বলেন, ন্যাটো বাল্টিক দেশগুলোতে তাদের শক্তি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রাশিয়াকে কঠিন চ্যালেঞ্জ জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা আমাদের মিত্রদের এবং তাদের প্রতিটি ইঞ্চি ভূমি রক্ষা করব। এদিকে ন্যাটোভুক্ত দেশগুলোর ঐক্য ও ইউক্রেনকে সহায়তার ঘোষণার মধ্যেই রাশিয়া পরমাণু মহড়া শুরু করেছে। রাশিয়ার গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বলা হয়, ভ্লাদিমির পুতিন পরমাণু অস্ত্রের বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছেন।

এখন পর্যন্ত ইউক্রেন থেকে পাঁচ লাখ মানুষ পাড়ি জমিয়েছে

এদিকে ইউক্রেন থেকে এ পর্যন্ত পাঁচ লাখের বেশি মানুষ পালিয়ে গেছে। জাতিসংঘের বরাত দিয়ে এএফপি জানিয়েছে, গত সপ্তাহে রাশিয়ার আগ্রাসনের পর থেকে অর্ধ মিলিয়নেরও বেশি মানুষ ইউক্রেন ছেড়ে পালিয়েছে। জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনের (ইউএনএইচসিআর) প্রধান ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি টুইট করে এ তথ্য জানিয়েছেন। ইউএনএইচসিআরের মুখপাত্র শাবিয়া মান্টু বলেন, পোল্যান্ডে 281,000 জন, হাঙ্গেরিতে 84,500 জন, মোল্দোভায় প্রায় 36,400 জন, রোমানিয়ায় 32,500 এরও বেশি এবং স্লোভাকিয়ায় প্রায় 30,000 লোক প্রবেশ করছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *