প্রভাত বাংলা

site logo
RK

ইউক্রেনে সর্বনাশ, গ্যাস পাইপলাইন উড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়া, লাখ লাখ দেশ ছেড়েছে

রাশিয়া ও ইউক্রেনের যুদ্ধের আজ চতুর্থ দিন। রুশ সেনাবাহিনী ইউক্রেনের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে তাণ্ডব চালাচ্ছে। ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভে একটি গ্যাস পাইপলাইন বিস্ফোরণে উড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী। জার্মানি ও ফ্রান্স ইউক্রেনকে সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছে। তথ্য অনুযায়ী, কিয়েভ থেকে মাত্র চার কিলোমিটার দূরে একটি নদীর তীরে রুশ সেনারা থেমেছে। একই সময়ে, ইউক্রেনীয় সেনারা শহরের প্রান্ত বরাবর অবরোধ করেছে।

বোমা হামলায় মানুষ নিহত
রাশিয়ার সেনাবাহিনী ইউক্রেনের অনেক এলাকায় বোমা হামলা চালাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে শুধু ইউক্রেনের মানুষই নিহত হচ্ছে না, অন্যান্য দেশের বহু বেসামরিক নাগরিকও বোমা হামলার শিকার হচ্ছে। এই যুদ্ধে গ্রিসের 10 জন নিহত হয়। এ বিষয়ে রুশ রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে গ্রিস।

ইউক্রেনের দাবি, বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি করেছে রাশিয়ার সেনাবাহিনী
একদিকে রাশিয়া হামলা চালাচ্ছে অন্যদিকে ইউক্রেনও দাবি করেছে যে তারা 3500 রুশ সেনা, 14টি বিমান এবং 8টি হেলিকপ্টার হত্যা করেছে। ইউক্রেন বিমান ভূপাতিত করার ছবিও প্রকাশ করেছে। রাতে ইউক্রেন এবং রাশিয়ার মধ্যে যুদ্ধ আরও ভয়াবহ হয়ে ওঠে।

শনিবার কিয়েভের কয়েকটি স্থানে গুলি চালানো হয়। এই যুদ্ধে ইউক্রেনের সেতু ও ভবনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ইউক্রেনের অনেক বেসামরিক নাগরিকও রুশ সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে প্রস্তুত হয়েছে। তারা বলছে, রুশ সেনাবাহিনী নিরীহ মানুষের ওপর হামলা চালাচ্ছে। একই সময়ে, রাশিয়া দাবি করেছে যে তারা কেবল সামরিক ঘাঁটিগুলিকে লক্ষ্যবস্তু করছে।

ইউক্রেন থেকে মানুষ তাদের বাড়িঘর ছেড়ে অন্য দেশে পাড়ি জমাচ্ছে। ইউক্রেন থেকে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার মানুষ পোল্যান্ড, মলদোভাসহ পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে গেছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *