প্রভাত বাংলা

site logo
Aniskhan

আনিস খান মৃত্যু রহস্য: আমরা বলির পাঁঠা হয়েছি, সির নির্দেশে গিয়েছিলাম: ধৃত

ওসির নির্দেশে শুক্রবার রাতে তিনি ছাত্রনেতা আনিস খানের বাড়িতে গিয়ে বলেন, আনিস হত্যা মামলায় জড়িত সন্দেহে আটক দুই পুলিশ সদস্যকে। পুরো ঘটনায় তাদের বলি দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি। আসলে এভাবেই আনিস-হত্যার আগুনে পানি ঢেলে দেওয়া হচ্ছে।

আনিস হত্যায় জড়িত থাকার সন্দেহে বুধবার হোমগার্ড কাশীনাথ বেরা এবং সিভিক ভলান্টিয়ার প্রীতম ভট্টাচার্যকে গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার আদালতে যাওয়ার পথে তারা জানান, শুক্রবার তারা আনিসের বাসায় গেলেও কীভাবে আনিসের মৃত্যু হয়েছে তা জানা যায়নি। তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়, ওই রাতে তারা কেন আনিসের বাসায় গিয়েছিল? কেউ কি তাদের যেতে বলেছে? জবাবে গ্রেফতারকৃত দুই পুলিশ সদস্য জানান, ওসির নির্দেশে তারা ছাত্রনেতা আমতারের বাড়িতে গিয়েছিলেন।

তবে এই ‘ওসি’ আমতা থানার ওসি কি না, তা জানাননি আটকরা। আনিসের বাসায় তাদের উপস্থিতিতে কীভাবে ওই ছাত্রনেতার মৃত্যু হয়েছে তা তিনি বলতে চাননি। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতরা আগে জিজ্ঞাসাবাদের সময় বিশেষ তদন্তকারী দলকে (এসআইটি) জানিয়েছিল, কিন্তু আনিস তাদের দেখে ছাদ থেকে পালিয়ে যায়। তা হলে বৃহস্পতিবার আদালতে যাওয়ার পথে পুরনো জবানবন্দি পাল্টেছেন ওই দুই পুলিশ সদস্য। একই সাথে, সম্ভবত এই প্রথম তারা বলেছেন যে তাদের বলি দেওয়া হচ্ছে। কেন, বুধবার গ্রেপ্তারের আগে বা পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তারা কোনো কথা বলেননি।

Read More :

এ ক্ষেত্রে নিহত ছাত্রনেতা আনিসের বাবার বক্তব্যও প্রাসঙ্গিক। দুই পুলিশ সদস্যকে আটকের খবর শোনার পর তাদের ছবি দেখে চিনতে পারেননি তিনি। শুক্রবার রাতে তারা বাড়িতে এসেছেন কিনা তা তিনি উল্লেখ করেননি। এমনকি বৃহস্পতিবার আনিসের পরিবার ও প্রতিবেশীরা জানিয়েছে, তারা দুই দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে। আনিসের প্রতিবেশীরা কেন জানতে চায় না যে দুই নিম্ন পদের পুলিশ তাকে আনিসের বাড়িতে পাঠিয়েছে তাদের নাম কেন প্রকাশ করা হচ্ছে না? দুই পুলিশ সদস্যসহ তাদের কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে না?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *